1. haornews@gmail.com : admin :
  2. editor@haor24.net : Haor 24 : Haor 24
শনিবার, ১৫ মে ২০২১, ০৪:৪৮ পূর্বাহ্ন

জেলা আ.লীগের দ্বন্ধের কারণে সরকারের সফলতা তুলে ধরতে ব্যর্থ নেতারা

  • আপডেট টাইম :: শনিবার, ১৫ জুলাই, ২০১৭, ৩.৪৬ পিএম
  • ১০০ বার পড়া হয়েছে

বিশেষ প্রতিনিধি::
উন্নয়নের মহাসড়কে অবস্থানকারী আওয়ামী লীগ সরকারের উন্নয়ন কর্মকা- সাধারণ মানুষের কাছে তুলে ধরার দাবি জানিয়েছেন তৃণমূল নেতৃবৃন্দ। তারা জানিয়েছেন স্বাধীনতার পর মহাজোট সরকারের টানা দুই মেয়াদে দেশ উন্নয়ন অবকাঠামোয় দ্রুত বদলে যাচ্ছে। প্রান্তিক এই জনপদ সুনামগঞ্জেও উন্নয়নের সেই জোয়ার বইছে। শিক্ষা, স্বাস্থ্য, যোগাযোগসহ অবকাঠামোগত দৃশ্যমান অনেক উন্নয়ন হয়েছে এ জেলায়। প্রায় সবগুলো উপজেলা এখন সরাসরি যোগাযোগের আওতায় এসেছে। জেলার বেকারত্ব দূরীকরণে কারিগরি ও বৃত্তিমূলক শিক্ষার জন্য টেকনিক্যাল ইনস্টিস্টিটিউট ও টেক্সটাইল ইনস্টিটিউট নির্মাণ প্রক্রিয়াধীন। আওয়ামী লীগের নেতৃত্বাধীন মহাজোট সরকার এতসব উন্নয়ন করলেও স্থানীয় আওয়ামী লীগ, অঙ্গ সংগঠন এবং মহাজোটের শরিক দলগুলো সাধারণ মানুষের সামনে সেই উন্নয়ন যঞ্জ তুলে ধরতে ব্যর্থ হচ্ছে। বরং যোদ্ধাপরাধীদের বিচার কার্যক্রম শুরুর পর দলটির প্রতি যেসব রাজনৈতিক প্রোপাগা-া চালানো হচ্ছে তার সঠিক জবাবও দিতে পারছেনা সংগঠনটি। তৃণমূল পর্যন্ত বিস্তৃত কোন্দলের কারণে এটা সম্ভব হচ্ছেনা বলে মনে করছেন তারা। শুধু আওয়ামী লীগই নয় ১৪ দলীয় জোটের অন্য শরিকরাও এই ক্ষেত্রে ব্যর্থ।
তৃণমূল নেতাকর্মীরা জানান, ২০০৮ সালের জাতীয় নির্বাচনের পর সুনামগঞ্জ জেলায় নানা খাতে উন্নয়ন হচ্ছে। বড় বড় সড়ক, সেতু নির্মিত হচ্ছে। নতুন হাসপাতাল, কলেজ, বিদ্যালয় স্থাপিত হচ্ছে। সরকারিকরণ হয়েছে একাধিক কলেজ ও হাইস্কুল। কৃষিক্ষেত্রেও বিরাট পরিবর্তন হয়েছে। নির্মিত হয়েছে একাধিক রাবার ড্যাম। টিআর, কাবিটা, কাবিখা, কর্মসৃজন, এডিপিসহ নানা কর্মসূচির মাধ্যমে গ্রামীণ অবকাঠামো উন্নয়ন করা হচ্ছে। তাছাড়া সামাজিক সুরক্ষা কর্মসূচিও আগের তুলনায় বহুগুণ বেড়েছে। অনলাইন-প্রযুক্তিতেও নানা প্রকল্প বাস্তবায়িত হচ্ছে। দৃশ্যমান অনেক উন্নয়ন হচ্ছে নিয়মিত। সুফলও পাচ্ছে সাধারণ মানুষ। কিন্তু আওয়ামী লীগ সরকারের এই উন্নয়ন-সম্ভাবনা যথাযতভাবে তুলে ধরা হচ্ছেনা। সারা দেশের ন্যায় সুনামগঞ্জেও আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীরা নিরব। শুধু সাংসদবৃন্দ নিজ নিজ এলাকায় দায়সারাভাবে উন্নয়ন কর্মকা- নিয়ে অনুষ্ঠান করছেন। এতে বিশাল জনগোষ্ঠী উপেক্ষিত থাকছে। তাছাড়া প্রশাসনে ঘাপটি মেরে থাকা বিএনপি জামায়াতের লোকজন সরকারের কাছ থেকে সুবিধা নিলেও আড়ালে জনতার মধ্যে সরকার বিরোধী মনোভাবকেই জাগিয়ে তুলছে। সম্প্রতি দক্ষিণ সুনামগঞ্জের সামাজিক সুরক্ষা কমিটিতে উপকারভোগী নির্বাচনে প্রশাসনিক কমিটিতে ছাত্র শিবিরের সাবেক শীর্ষ নেতাকে সভাপতি করায় তিনি দলীয় লোক দিয়ে জামায়াত-বিএনপির উপকারভোগীদের বাছাই করছেন বলে অভিযোগ উঠেছে। এভাবে প্রশাসনের অন্যান্য শাখায়ও কৌশলে নিজেদের কাজ হাসিল করছে স্বাধীনতাবিরোধীরা। তাদের মোকাবেলায় প্রশাসনের স্বাধীনতার পক্ষের শক্তিগুলো নিরব।
আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীরা জানান, মহাজোট সরকারের এই দুই মেয়াদে শত কোটি টাকার প্রকল্পগুলোর মধ্যে আব্দুজ জহুর সেতু নির্মাণকাজ শেষ করেছে। কুশিয়ারা সেতু, ছাতকে সুরমা সেতু, যাদুকাটা নদীতে সেতু, দাড়াইন, কালনীসহ বিভিন্ন উপজেলার বড় বড় নদ-নদী খালে বিরাটাকার সেতু করে সরাসরি জেলার সঙ্গে যোগাযোগ স্থাপনের পক্রিয়া সম্পন্ন করার উদ্যোগ নিয়েছে। সরকারি হাসপাতাল হচ্ছে। মেডিকেল কলেজের সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়েছে। নির্মাণের উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে টেক্সটাইল ইনস্টিটিউটের। এভাবে জেলা জুড়ে দৃশ্যমান নানা উন্নয়ন হলেও দলীয় নেতাকর্মীরা সেই উন্নয়ন জনতার সামনে তুলে ধরছেননা। বরং প্রতিনিয়ত দলটির সকল অঙ্গ সংগঠনের মধ্যেও বিরোধ বাড়ছে। সাংসদদের সঙ্গে দূরত্ব বাড়ছে কর্মীদের। নেতাদের মধ্যে দ্বন্দ বেড়ে চলছে।
জেলা মুক্তিযোদ্ধা যুব কমান্ডের সভাপতি ওবায়দুর রহমান কুবাদ বলেন, আমাদের নেতারা বিশেষ করে সাংসদদের অনেকেই দলীয় নেতাকর্মীদের বদলে জামায়াত-বিএনপির লোকদের নিয়ে চলছেন। তাদের পরামর্শে উন্নয়ন কর্মসূচি বণ্ঠন করছেন। সরকারবিরোধীরা এই সুযোগে আমাদের নেতাদের ব্যবহার করে নিজের স্বার্থ হাসিল করছে। অনেক নেতা দলীয় নেতাকর্মীদের নানাভাবে হয়রানিও করছেন।
জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক হায়দার চৌধুরী লিটন বলেন, আমাদের আওয়ামী লীগসহ সকল অঙ্গসংগঠনকে ভেধাভেদ ভুলে সরকারের উন্নয়ন কর্মর্সূচি সাধারণ মানুষের সামনে তুলে ধরার কাজে মনোযোগী হতে হবে। কারণ স্বাধীনতার পরে এমন দৃশ্যমান উন্নয়ন করতে পারেনি কোন সরকার। শেখ হাসিনার নেতৃত্বে মহাজোট সরকার এখন প্রকৃত অর্থেই উন্নয়নের মহাসড়কে অবস্থান করছে। উন্নয়নে বদলে গেছে আমাদের অবহেলিত জেলাটিও।
সুনামগঞ্জ পৌর মেয়র ও আওয়ামী লীগের জাতীয় পরিষদ সদস্য আয়ূব বখত জগলুল বলেন, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু কন্যা ও আমাদের জননেত্রী শেখ হাসিনা দেশকে উন্নয়ন অবকাঠামোয় মাধ্যমে দেশকে অনেক উঁচুতে নিয়ে গেছেন। সেই উন্নয়নকে সাধারণ মানুষের কাছে তুলে ধরতে হবে।

Print Friendly, PDF & Email

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর
themesbazarhaor24net
© All rights reserved © 2019 haor24.net
Theme Download From ThemesBazar.Com
error: Content is protected !!