1. haornews@gmail.com : admin :
  2. editor@haor24.net : Haor 24 : Haor 24
শুক্রবার, ০১ জুলাই ২০২২, ০৪:২৬ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম ::
সাঁওতাল বিদ্রোহ, নিপীড়িতের মাঝে দ্রোহের অগ্নিস্ফুলিঙ্গ ফের ঊর্ধ্বমুখী করোনা : ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানে বিধি-নিষেধ একাত্তরে মানবতাবিরোধী অপরাধে হবিগঞ্জের শফির প্রাণদণ্ড, তিনজনের আমৃত্যু কারাদণ্ড সুনামগঞ্জে বন্যায় মোট মৃতের অর্ধেকের বেশি দোয়ারাবাজারের বাসিন্দা ‘প্রাথমিকে নিয়োগ হবে আরও ৩০ হাজার শিক্ষক’ ‘দুষ্টু আমলাদের চাতুরির’ কারণে আইনকানুন পরিবর্তন করা যাচ্ছে না পদ্মা সেতু রক্ষার জন্য সবাইকে দায়িত্বশীল হতে হবে : ওবায়দুল কাদের সারা দেশে পশুর হাট বসবে ৪৪০৭টি, পরতে হবে মাস্ক ষড়যন্ত্রের কারণে পদ্মা সেতু নির্মাণে দুই বছর দেরি : প্রধানমন্ত্রী নির্মল রঞ্জন গুহের মৃত্যুতে প্রধানমন্ত্রীর শোক

পল্লীবিদ্যুতের ভূতুুড়ে বিল: সংশোধনের দাবিতে মোহনপুরের ক্ষুব্দ গ্রাহকদের অভিযোগ

  • আপডেট টাইম :: বুধবার, ১৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৮, ১.১২ পিএম
  • ১৫৯ বার পড়া হয়েছে

স্টাফ রিপোর্টার::
সুনামগঞ্জ পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির ভুতুড়ে বিল সংশোধন করে প্রকৃতি বিল গ্রাহকদের প্রদানের জন্য সুনামগঞ্জ পল্লী বিদ্যুতের জেনারেল ম্যানেজার বরাবর লিখিত অভিযোগ করেছেন ভূক্তভোগীরা। মঙ্গলবার দুপুরে সুনামগঞ্জ সদর উপজেলার মোহনপুর ইউনিয়নের মোহনপুর গ্রামের ভূক্তভোগীদের নিয়ে বিক্ষোভ করে মোহনপুর যুবকল্যাণ পরিষদের সদস্যরা বিল সংশোধন করে দেওয়ার লিখিত আবেদন জানান। অস্বাভাবিক বিল সংশোধন করে না দিলে দুর্বার আন্দোলন গড়ে তোলার ডাক দিয়েছেন গ্রামের তরুণরা।
গ্রামবাসীর লিখিত অভিযোগ থেকে জানা যায়, মোহনপুর এলাকায় পল্লী বিদ্যুতের প্রায় দেড় হাজার গ্রাহক রয়েছেন। গত জুলাই মাসে এলাকার সকল গ্রাহককে ৩-৪ গুণ বেশি বিল দেওয়া হয়। এই অস্বাভাবিক বিল পেয়ে গ্রামের কোন গ্রাহকই যথা সময়ে বিল পরিশোধ করেননি। সম্প্রতি গ্রামবাসী পল্লীবিদ্যুতের এমন অস্বাভাবিক বিলের প্রতিবাদে বৈঠক ডেকে লিখিতভাবে বিল সংশোধন করে দেওয়ার জন্য পল্লীবিদ্যুৎকে লিখিত দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেন। গ্রামবাসীর ডাকে এগিয়ে আসে গ্রামের তরুণদের সংগঠন মোহনপুর যুবকল্যাণ পরিষদ।
গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে দুটি নৌকা করে প্রায় দেড় শতাধিক গ্রাহক সুনামগঞ্জ পল্লী বিদ্যুত কার্যালয়ে নিয়ে আসেন গ্রামের যুবকেরা। নৌকা থেকে নেমে বিক্ষোভ করে তারা কার্যালয়ে গিয়ে লিখিত আবেদন দিয়ে অবিলম্বে বিল সংশোধন করার আহ্বান জানান। এসময় উপস্থিত ছিলেন মুছন আলী, আব্দুর রহমান, আব্দুল আউয়াল, কাজী সায়েম, গোলাম হুসেন, সাইদুর রহমান প্রমুখ।
গ্রামের ভূক্তভোগী গ্রাহক রইমুদ্দিন জানান, প্রতি মাসে তার ২২০-২৫০ টাকা পর্যন্ত সর্বমোট বিল আসে। কিন্তু গত জুলাই মাসে ৭৯৫ টাকা বিল এসেছে। একই গ্রামের গ্রাহক ওয়ারিশ উদ্দিন বলেন, তার চারগুণ বিল বেশি এসেছে। পল্লী বিদ্যুতের মিটার রিডার ঘটনাস্থলে না গিয়েই মনগড়া বিল করেছে বলে অভিযোগ করেন তিনি।
মোহনপুর যুবকল্যাণ পরিষদের সদস্য শামছুজ্জামান সায়েম বলেন, আমাদের এলাকায় পল্লী বিদ্যুতের প্রায় দেড়াহাজার গ্রাহক রয়েছেন। গত জুলাই মাসে সব গ্রাহকেরই প্রায় চার থেকে পাচগুণ বিদ্যুৎ বিল বেশি এসেছে। কোন যুক্তিসঙ্গত কারণ ছাড়াই এই অস্বাভাবিক বিল দেওয়া হয়েছে। আমাদের সংগঠন থেকে ক্ষুব্দ গ্রাহকদের নিয়ে মঙ্গলবার পল্লী বিদ্যুৎ কার্যালয়ে এসে লিখিত আবেদন দিয়ে অবিলম্বে ভুতুড়ে বিল সংশোধন করে দেওয়ার দাবি জানিয়েছি। গ্রাম থেকে প্রায় দেড় শতাধিক মানুষ এসে লিখিত আবেদন করে বিল সংশোধন করে দেওয়ার দাবি জানান।
পল্লী বিদ্যুতের সহকারি জেনারেল ম্যানেজার মো. জসিম উদ্দিন বলেন, সবখানের গ্রাহকদেরই বিল একটু বেশি আসছে। কারণ এখন কোন লোডশেডিং নেই। গ্রাহকরা ২৪ ঘন্টা বিদ্যুৎ ব্যবহার করেন। তবে মোহনপুর গ্রামের গ্রাহকদের লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। আমরা তদন্ত করে ব্যবস্থা নেব।

Print Friendly, PDF & Email

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর
themesbazarhaor24net
© All rights reserved © 2019 haor24.net
Theme Download From ThemesBazar.Com
error: Content is protected !!