1. haornews@gmail.com : admin :
সোমবার, ১৯ অক্টোবর ২০২০, ০৩:১৭ অপরাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম ::

তাহিরপুর সীমান্তে ভারতীয় বন্যহাতির উৎপাতে আতঙ্ক

  • আপডেট টাইম :: রবিবার, ১১ অক্টোবর, ২০২০, ১০.৩৯ পিএম
  • ২৪ বার পড়া হয়েছে

বিশেষ প্রতিনিধি::
তাহিরপুর উপজেলার উত্তরবড়দল ইউনিয়নের চানপুর-রজনী লাইন-রাজাই সীমান্তে (ভারতীয় অংশে) হঠাৎ ভারতীয় বন্যাহাতির উপদ্রব দেখা গেছে। গত দুই দিন ধরে কালাপাহাড় থেকে চানপুর সীমান্তে দল বেঁধে বন্যাহাতির দল ঘুরে বেড়াচ্ছে। বাংলাদেশ সীমান্তে নেমে এসব হাতি তা-ব শুরু করতে পারে বলে সীমান্তে বসবাসকারী লোকজন আশঙ্কা করছেন।
সীমান্তে বসবাসকারী লোকজন জানান, গত একমাস ধরে কালাপাহাড় সীমান্তে ভারতের অংশে একদল বন্যহাতি উপদ্রব শুরু করে। এতে ভারতীয় অংশের রাজাই গ্রামের আদিবসাী এবং কালাপাহাড়ে গারো আদিবাসীরা আতঙ্কিত হয়ে পড়েন। গত ১০ অক্টোবর চানপুর সীমান্তের কালাপাহাড়ে ভারতীয় অংশে গারো আদিবাসীদের ৫টি ঘর গুড়িয়ে দিয়েছে বন্য হাতির দল। যে কোন সময় বাংলাদেশ সীমান্তে নেমে তা-ব শুরু করতে পারে বলে সীমান্তবাসী আতঙ্ক প্রকাশ করেছেন। চানপুর গ্রামবাসী এসব হাতির তা-ব দেখছেন বলেও জানান প্রত্যক্ষদর্শীরা।
জানা গেছে বন্যহাতির উৎপাতে ভারতীয় অংশের রাজাই গ্রামবাসী বিএসএসফ, ভারতীয় পুলিশ ও স্থানীয় প্রশাসনকে অবগত করার পর তাদেরকে হাত বোমা দিয়েছে ভারতীয় কর্তৃপক্ষ। তাছাড়া ভারতীয় পুলিশ বন্যহাতি তাড়াতে ফাঁকা ফায়ারিং করে গতকাল। এই ফায়ারিংয়ের পর বন্যহাতির দল আরো বেশি উৎপাত শুরু করেছে। বাংলাদেশ সীমান্ত লাগোয়ারা কালা পাহাড়ে গারো আদিবাসীদের ৫টি বসতবাড়ি গুড়িয়ে দিয়েছে। বাংলাদেশ সীমান্তঘেঁষা ভারতীয় অংশে রবিবার সন্ধ্যায় একদল বন্য হাতি তা-ব চালিয়েছে বলে সীমান্তে বসবাসকারী লোকজন জানিয়েছেন। তারা হাতির বিকট হুঙ্কারে আতঙ্কিতও। সীমান্তে বসবাসকারী লোকজন এ বিষয়টি উপজেলা চেয়ারম্যান বাবুল চৌধুরী ও স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান আবুল কাশেমকে অবগত করেছেন।
রাজাই গ্রামের আদিবাসী নেতা এন্ড্রু সলোমার বলেন, আমি ভারতের রাজাই গ্রামের পরিচিতদের সঙ্গে কথা বলে জেনেছি গত ২০ দিন ধরে বন্য হাতির উৎপাত চলছে। আমরা সীমান্ত থেকেও উন্মাদ বন্যহাতিদের তা-ব দেখছি। গতকাল ভারতের কালাপাহাড়ে (বাংলাদেশের চানপুর সংলগ্ন) গারো আদিবাসীদের কয়েকটি বসতঘর গুড়িয়ে দিয়েছে। ভারতীয় বিএসএফ এসব বন্য হাতি তাড়াতে ফায়ারিংও করেছে যা আমরা শুনেছি। তিনি বলেন, যে কোন সময় বাংলাদেশ সীমান্তে নেমে আসতে পারে এসব বন্য হাতির দল। তখন বড় ধরনের দুর্ঘটনা ঘটতে পারে। তাই আমরা উপজেলা চেয়ারম্যানকে বিষয়টি অবগত করেছি।
উপজেলা চেয়ারম্যান বাবুল চৌধুরী বলেন, সীমান্তে বসবাসকারীরা ভারতীয় বন্য হাতির আতঙ্কের কথা জানিয়েছেন। আমি এ বিষয়ে সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে কথা বলেছি।

Print Friendly, PDF & Email

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর
themesbazarhaor24net
© All rights reserved © 2019 haor24.net
Theme Download From ThemesBazar.Com
error: Content is protected !!