1. haornews@gmail.com : admin :
  2. editor@haor24.net : Haor 24 : Haor 24
শনিবার, ২৪ জুলাই ২০২১, ০৭:১৪ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম ::

টাঙ্গুয়ার হাওরের নাওটানা বাধ: জনতা জনপ্রতিনিধিদের নেতৃত্বে ফের মেরামত

  • আপডেট টাইম :: শনিবার, ২৮ এপ্রিল, ২০১৮, ৬.৫০ এএম
  • ৮৬ বার পড়া হয়েছে

স্টাফ রিপোর্টার::
সুনামগঞ্জের তাহিরপুর উপজেলার টাঙ্গুয়ার হাওরে আইইউসিএন নির্মিত পুরনো একটি বাধ মাছ শিকারের লোভে স্থানীয় মৎস্যজীবিরা কেটে দিয়েছে। টাঙ্গুয়ার হাওরে ফসলি জমি না থাকলেও পার্শবর্তী গ্রামগুলোর কান্দায় চাষকৃত অল্প জমি ক্ষতি হয়েছে বলে কৃষকরা জানিয়েছেন।
তবে পানি উন্নয়ন বোর্ড জানিয়েছে এই বাধটি ৩-৪ বছর আগে টাঙ্গুয়ার হাওর রক্ষণাবেক্ষণে নিয়োজিত আইইউসিএন নামক একটি সংগঠন তাদের কমিউনিটির লোকদের দিয়ে নির্মাণ করেছিল। এই বাধের পার্শবর্তী হাওরগুলো ঝুকির মুখে পড়তে পারে এই আশঙ্কায় স্থানীয় উপজেলা চেয়ারম্যান কামরুজ্জামান কামরুল শনিবার স্থানীয় জনপ্রতিনিধিসহ হাওররক্ষণাবেক্ষণে নিয়োজিত সংশ্লিষ্টদের নিয়ে সকাল থেকেই বাধের পানি আটকানোর চেষ্টা করেন। ইতোমধ্যে বাধের ভাঙ্গা অংশে বাশ ও মাটির বস্তা দিয়ে বাধটি ফের মেরামত করে পানি আটকাতে সক্ষম হয়েছেন।
গত বৃহষ্পতিবার রাতে টাঙ্গুয়ার হাওরে অবাধে মাছ ধরার লোভে কমিউনিটি নির্মিত বাধটি কেটে দেয় কিছু মৎস্যজীবী। এ ঘটনায় কমিউনিটির সদস্য খসরুল আলম থানায় অভিযোগ দায়ের করলে পুলিশ আনোয়ার হোসেন নামের এক অভিযুক্তকে আটক করেছে।
শনিবার সকাল থেকেই কামরুজ্জামান কামরুল স্থানীয় ইউপি চেয়ার‌্যামন খসরুল আলম, হাওররক্ষণাবেক্ষণে নিয়োজিত কর্মকর্তা ইয়াহইয়া সাজ্জাদসহ স্থানীয়দের নিজে দীর্ঘক্ষণ কাজ করে বাধের পানি আটকাতে সক্ষম হন।
পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী মো. আবু বকর সিদ্দিক ভুইয়া বলেছেন নাওটানা বাধটি পানি উন্নয়ন বোর্ডের বাধ নয়। এখানে পাউবো কখনো ফসলরক্ষার জন্য বাধও নির্মাণ করেনি। কয়েক বছর আগে টাঙ্গুয়ার হাওর রক্ষণাবেক্ষণে নিয়োজিত আইইউসিএন নামক একটি সংগঠন বাধটি নিজিদের মৎস্য আহরণের স্বার্থে নির্মাণ করেছিল।
তাহিরপুর উপজেলা চেয়ারম্যান কামরুজ্জামান কামরুল বলেন, টাঙ্গুয়ার হাওরে ফসলি জমি নেই। তবে গ্রামের পাশে উচু কান্দায় কিছু জমি চাষ করেন কৃষক। দেশিপ্রজাতির এই ধান বেশিরভাগই কেটে নিয়েছেন। অল্প জমি ক্ষতি হয়েছে। কিন্তু এই বাধটি না বাধলে আশপাশের হাওরের বাধ ঝূকিতে পড়তো এবং ফসলও ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারতো এই আশঙ্কায় আমরা আজ সকাল থেকে বাধটি আবার পুনরায় মেরামত করেছি। এখন আর পানি যাচ্ছেনা। তিনি বলেন, গত রাতে উপজেলা নির্বাহী অফিসারও বাধে এসেছিলেন। তিনিও পানি আটকানোর চেষ্টা করেছেন।

Print Friendly, PDF & Email

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর
themesbazarhaor24net
© All rights reserved © 2019 haor24.net
Theme Download From ThemesBazar.Com
error: Content is protected !!