1. haornews@gmail.com : admin :
  2. editor@haor24.net : Haor 24 : Haor 24
বৃহস্পতিবার, ০৮ ডিসেম্বর ২০২২, ০৮:১৭ অপরাহ্ন

ভোলাগঞ্জে পাথর কোয়ারিতে সুনামগঞ্জের চার শ্রমিকের মৃত্যু

  • আপডেট টাইম :: সোমবার, ২৬ ফেব্রুয়ারী, ২০১৮, ৯.১৪ পিএম
  • ১২০ বার পড়া হয়েছে

স্টাফ রিপোর্টার:

সিলেটের কো¤পানিগঞ্জ উপজেলার ভোলাগঞ্জ পাথর কোয়ারিতে মাটি ধসে সুনামগঞ্জের চার হতদরিদ্র দিনমজুরের মর্মান্তিক মৃত্যু হয়েছে। রোববার রাতে কোয়ারিতে পাথর উত্তোলনকালে মাটি চাপা পড়ে শ্রমিকের মৃত্যুর ঘটনা ঘটলেও এখন পর্যন্ত (সোমবার রাত ১০টা) পরিবারের লোকজন লাশ পায়নি। নিহতের মধ্যে দুইজন দক্ষিণ সুনামগঞ্জ ও দুইজন জামালগঞ্জের বাসিন্দা। এদিকে স্বজন হারানো এসব হতদরিদ্র পরিবারে এখন শোকের মাতম চলছে। স্বজনহারানো লোকজন জানিয়েছেন লাশগুলো এখনো কোম্পানিগঞ্জ থানায় আছে। কোম্পানিগঞ্জের আলী আমজাদের মালিকানাধীন গর্তে জেনারেটর জ্বালিয়ে অবৈধভাবে পাথর তোলার সময় এ দুর্ঘটনার ঘটনা ঘটে বলে জানাগেছে।
দুর্ঘটনায় নিহতরা হলেন দক্ষিণ সুনামগঞ্জের মুরাদপুর গ্রামের মতিউর রহমান (৩০), একই উপজেলার থলেরবন্দ গ্রামের মৃত আব্দুল জলিলের ছেলে আশিক মিয়া (৪৫) এবং জামালগঞ্জের কলকতখাঁ গ্রামের মৃত রইছ উদ্দিনের ছেলে মনির উদ্দিন (৩৫) ও একই গ্রামের মৃত আকবর আলীর ছেলে আতাউর রহমান (৫০)। রোববার রাত সাড়ে ৯টার দিকে কোম্পানিগঞ্জ উপজেলার ভোলাগঞ্জের হাজীরডেগনার সীমান্ত এলাকার পাথর কোয়ারিতে দুর্ঘটনায় মারা যান তারা। প্রায় ৭০-৮০ ফুট গর্ত করে পাথর উত্তোলনের সময় এ দুর্ঘটনা ঘটে।
আহত অন্য শ্রমিকদের রকিবুল, ফিরোজ আলী ও রুহেলকে কো¤পানিগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। এ ঘটনার পর কোয়ারির লেবার সর্দার আব্দুর রউফকে (৫০) আটক করা হয়েছে।
এদিকে দুর্ঘটনার প্রায় ২৪ ঘণ্টা অতিবাহিত হলেও স্বজনরা লাশ বুঝে পায়নি। মৃত্যুর খবর বাড়িতে পৌঁছার পরই পরিবারে মাতম ওঠে। রাতেই স্বজনদের অনেকে ছুটে যান কোম্পানিগঞ্জের দিকে। তারা বিভিন্ন স্থানে ছোটাছুটি করেন দিনভর। এই রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত সোমবার রাত ৯টার পরও তারা লাশ বুঝে পাননি।
থলেরবন্দ গ্রামের সমাজসেবী হায়দার হোসেন বলেন, আমাদের এলাকার চারজনের মর্মান্তিক মৃত্যু হয়েছে। দুর্ঘটনার পর হতদরিদ্র পরিবারে শোকের মাতম চলছে। তবে দুর্ঘটনার ২৪ ঘণ্টা অতিবাহিত হওয়ার পরও স্বজনরা লাশ বুঝে না পাওয়ায় তারা মর্মাহত।
সিলেট জেলা পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সামসুল আলম জানান, রোববার রাত সাড়ে ৯টার দিকে উপজেলার ভোলাগঞ্জের হাজিরডেগনার সীমান্ত এলাকায় একদল লোক অবৈধভাবে ৬০-৭০ ফুট গর্ত করে পাথর তুলছিলেন। এক পর্যায়ে গর্ত ধসে মাটি চাপা পড়েন ৭-৮ জন শ্রমিক। সঙ্গে সঙ্গে ২ জন নিহত হন। তবে সোমবার বেলা ১১টার দিকে কোয়ারিতে অভিযান চালিয়ে আরো দুটি মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ।
কো¤পানিগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোহাম্মদ আবুল লাইছ, অফিসার ইনচার্জ (তদন্ত) দিলীপ কান্তি নাথ জানান, দুর্ঘটনায় নিহতের উদ্ধার কাজ শেষ হয়েছে। ময়নাতদন্ত শেষে লাশগুলো পরিবারের কাছে হস্তান্তরের চেষ্টা চলছে।

Print Friendly, PDF & Email

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর
themesbazarhaor24net
© All rights reserved © 2019 haor24.net
Theme Download From ThemesBazar.Com
error: Content is protected !!