1. haornews@gmail.com : admin :
  2. editor@haor24.net : Haor 24 : Haor 24
শুক্রবার, ১৪ জুন ২০২৪, ০৮:৩৯ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম ::
সুনামগঞ্জ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের সিন্ডিকেট মেম্বার হলেন মান্নান-সাদিক এমপি সুনামগঞ্জ সদর উপজেলা পার্কে নারী নির্যাতন: তিন বখাটে গ্রেপ্তার কানাডাকে হারিয়ে স্বস্তির জয়ে টিকে রইল পাকিস্তান ভারতে এই তীব্র গরমে আরও ৮ জনের মৃত্যু নারায়ণগঞ্জে ফ্ল্যাটের বারান্দায় ঝুলন্ত কলেজ ছাত্রের মরদেহ রূপার চেইনের জন্য ধর্ষণের পর শিশুটিকে হত্যা করা হয়েছে: র‌্যাব সিলেট টিলা ধসে মৃত্যুর ঘটনায় জেলা প্রশাসনের তদন্ত কমিটি লেবাননের বিপক্ষে হেরে বিশ্বকাপ বাছাই থেকে শেষ বাংলাদেশ বাংলাদেশের নাটকীয় পরাজয়ে তামিম-মরকেল-ওয়াকারদের নিয়ম পুনর্বিবেচনায় রোনালদোর অনন্য কীর্তির দিনে পর্তুগালের দারুণ এক জয়

সুনামগঞ্জ এসসি গার্লস হাইস্কুলে দুর্নীতির মচ্ছব: সরকার বানাচ্ছে তোড়ণ, চাঁদা তোলছেন প্রধান শিক্ষক!

  • আপডেট টাইম :: বুধবার, ৯ আগস্ট, ২০২৩, ৭.১৭ পিএম
  • ৭২ বার পড়া হয়েছে

বিশেষ প্রতিনিধি::
সুনামগঞ্জ সরকারি সতীশ চন্দ্র বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের ছাত্রীঅদের কাছ থেকে বিদ্যালয়ের তোড়ণ ও ক্যাম্পাসে শহিদ মিনার তৈরির জন্য ৩০০ টাকা করে উত্তোলন করছেন প্রধান শিক্ষক। ইতোমধ্যে বেশ কিছু ছাত্রী প্রধান শিক্ষক নির্ধারিত টাকা দিয়েও দিয়েছেন। কিন্তু অসহায় অভিভাবকরা প্রতিবাদ করতে পারছেন না। টাকা উত্তোলনের বিষয়টি প্রধান শিক্ষক স্বীকার করেছেন। এটি বিদ্যালয়ের নানা খাতে ব্যয় করা হবে বলে জানা তিনি। তবে বিশ্বস্থ সূত্রে জানা গেছে বিদ্যালয়ের বিভিন্ন খাত থেকে টাকা উত্তোলন করে শেষ করে দেওয়া হয়েছে। কেবল টিফিন ও ম্যাগাজিন ফা-ে নামকাওয়াস্তে কিছু টাকা আছে।
সরকারি সতীশ চন্দ্র বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় সূত্রে জানা গেছে এই বিদ্যালয়ে ১ হাজার ২৫০ জন ছাত্রী পড়াশোনা করে। প্রধান শিক্ষক হাফিজ মশহুদ চৌধুরী নানা ছুতোয় ছাত্রী ও অভিভাবকদের জিম্মি করে টাকা উত্তোলন করছেন। নানা অনিয়মের প্রতিবাদ করার কারণে তিনি সরকারি চাকুরিজীবী হয়েও বিভিন্ন পেশাজীবীদের বিরুদ্ধে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বিষোদঘার করেন। তার বিরুদ্ধে কয়েক মাস আগে জেলা প্রশাসকের কাছে শালিস দিয়েছিলেন একটি পেশাজীবী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ। সম্প্রতি তিনি বিদ্যালয়ের প্রায় ১ হাজার ২৫০ জন ছাত্রীকে ৩০০ টাকা করে দেওয়ার নির্দেশনা জারি করেছেন। কলেজের তোড়ণ নির্মাণ ও ক্যাম্পাসে শহিদ মিনার নির্মাণের কথা বলে তিনি এই টাকা ছাত্রীদের প্রতি ধার্য্য করেছেন। এদিকে সুনামগঞ্জ শিক্ষাপ্রকৌশল অধিদপ্তরের সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে বিদ্যালয়ের প্রবেশপথে ১০ লক্ষ ৫০ হাজার টাকা ব্যয়ে একটি দৃষ্টিনন্দন তোড়ণ নির্মাণ করছে শিক্ষাপ্রকৌশল অধিদপ্তর। সরকারি নক্সায় সম্পূর্ণ সরকারি খরচে এটি নির্মিত হচ্ছে। কিন্তু প্রধান শিক্ষক অন্যায়ভাবে এই টাকা উত্তোলনের নির্দেশ দেওয়ার পর বাধ্য হয়ে অভিভাবকরা ছাত্রীদের চাপে ৩০০ টাকা করে দিচ্ছেন।
নামপ্রকাশে অনিচ্ছুক এক ছাত্রীর বাবা জানান, কিছুদিন পরপরই অন্যায়ভাবে বিদ্যালয়ে নানা ছুতোয় টাকা নেওয়া হচ্ছে। আমার সাধ্য থাকলেও অনেকের সাধ্য নেই। কিন্তু কোমলমতি সন্তানের চাপে তারা টাকা দিচ্ছেন। তিনি বলেন, একজন শিক্ষকের কাছ থেকে এমন অনিয়ম ও দুর্নীতি আশা করিনা আমরা। কিন্তু প্রতিনিয়ত এটাই হচ্ছে এই স্কুলে।
এ বিষয়ে প্রধান শিক্ষক হাফিজ মশহুদ চৌধুরী ৩০০ টাকা করে নেওয়ার কথা স্বীকার করে বলেন, ক্যাম্পাসে শহিদ মিনার নেই, তোড়নের পাশে গ্যাসলাইনের রাইজার আছে, সেটি সংস্কার করতে হবে আমাদেরকে। এছাড়াও স্কুলের বিদ্যুৎ, কম্পিউটার খাত সংস্কারেও এই টাকা ব্যবহার করা হবে। সরকার এসব সংস্কারে রুটিন মেইনটেনেন্স দেওয়ার পরও কেন টাকা নেওয়া হবে জানতে চাইলে তিনি বলেন, সরকার এই খাতে অল্প টাকা দেয়। এই টাকায় পোষায়না। তাই ছাত্রীদের কাছ থেকে টাকা নিয়ে নানা কাজ করতে হয়।
সুনামগঞ্জ শিক্ষা প্রকৌশল অধিদপ্তরের নির্বাহী প্রকৌশলী মো. কামরুজ্জামান বলেন, আমরা স্কুলের সামনে দৃষ্টিনন্দন তোড়ণ নির্মাণ করে দিচ্ছি। সরকার পুরো বরাদ্দ দিয়েছে। এই খাত দেখিয়ে প্রতিষ্ঠান থেকে টাকা উত্তোলন করা অনৈতিক।
অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক হোসাইন মাহমুদ মোজাহিদ বলেন, আমিও শুনেছি উনি ৩০০ টাকা করে নিচ্ছেন। এভাবে তিনি অন্যায়ভাবে ছাত্রীদের কাছ থেকে টাকা নিতে পারেন না। এই বিষয়টি জরুরিভাবে দেখা হবে।

Print Friendly, PDF & Email

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর
themesbazarhaor24net
© All rights reserved © 2019-2024 haor24.net
Theme Download From ThemesBazar.Com
error: Content is protected !!