1. haornews@gmail.com : admin :
শুক্রবার, ০৯ এপ্রিল ২০২১, ০৬:০৮ অপরাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম ::

বীর মুক্তিযোদ্ধা বজলুল মজিদ চৌধুরী খসরুকে সর্বসাধারণের শেষ বিদায়

  • আপডেট টাইম :: বৃহস্পতিবার, ২৫ ফেব্রুয়ারী, ২০২১, ৪.১৩ পিএম
  • ৩৫ বার পড়া হয়েছে

বিশেষ প্রতিনিধি::
সর্বসাধারণের অশ্রুসিক্ত ভালবাসায় শেষ বিদায় নিলেন সুনামগঞ্জের বিশিষ্ট মুক্তিযোদ্ধা, লেখক, আইনজীবী ও বহুমাত্রিক প্রতিভাধর ব্যক্তিত্ব বজলুল মজিদ চৌধুরী খসরু। দুই দফা জানাযা শেষে তাকে বৃহষ্পতিবার বিকেল ৩ টায় সুনামগঞ্জ ষোলঘর গোরস্তানে দাফন করা হয়। এর আগে সুনামগঞ্জ কেন্দ্রীয় ঈদগাহে তাকে গার্ড অব অনার দেয় প্রশাসন।
বুধবার বিকেল ৩টায় সুনামগঞ্জ জেলা সদর হাসপাতালে হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মারা যান তিনি। এরপর থেকেই তাঁর মৃত্যুতে শোকাহত হন সুনামগঞ্জ জেলাসহ দেশ-বিদেশের বিভিন্ন প্রান্তের মানুষজন। তারা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শোকপ্রকাশের সঙ্গে জীবনের নানা স্মৃতি রোমন্থন করেন। তার বাসায় ছুটে আসেন সুধীজন। সকালে তাকে শেষ শ্রদ্ধা জানানোর জন্য নিয়ে যাওয়া হয় তাঁর স্মৃতিবিজড়িত প্রতিষ্ঠান জেলা আইনজীবী সমিতির কার্যালয়ে। সেখানে আইনজীবীসহ বিভিন্ন পেশাজীবী সংগঠনের লোকজন শ্রদ্ধা জানান। পরে সুনামগঞ্জ কেন্দ্রীয় শহিদ মিনারে সর্বসাধারণের শ্রদ্ধার জন্য মরদেহ নেওয়া হয়। সেখানে বীর মুক্তিযোদ্ধাবৃন্দ, জেলার বিভিন্ন সাংস্কৃতিক, সামাজিক সংগঠনের লোকজনসহ বিভিন্ন শ্রেণিপেশার মানুষ শ্রদ্ধা জানান। পরে সুনামগঞ্জ পৌরসভায় শ্রদ্ধা জানানোর জন্য নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানেও পৌর কর্তৃপক্ষসহ নাগরিকবৃন্দ তাকে শেষ শ্রদ্ধা জানান।
দুপুর ২টায় কেন্দ্রীয় ঈদগাহে তার নামাজে যানাজা অনুষ্ঠিত হয়। জানাযায় সুনামগঞ্জ-৫ আসনের সংসদ সদস্য মুহিবুর রহমান মানিক, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ব্যারিস্টার এম. এনামুল কবির ইমন, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক মো. শরিফুল ইসলামসহ প্রশাসন ও রাজনৈতিক দলের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। যানাজা নামাজপূর্ব তাকে পুলিশ ও প্রশাসন গার্ড অব অনার প্রদান করে।
পরে বেলা আড়াইটায় ষোলঘর জামে মসজিদ প্রাঙ্গনে তার দ্বিতীয় নামাজে যানাজা হয়। দুটি জানাযাতেই হাজারো মুসল্লি অংশ নেন।
বজলুল মজিদ চৌধুরী খসরু হাওর বাঁচাওসহ বিভিন্ন সামাজিক আন্দোলনে সক্রিয় এই মুক্তবুদ্ধিজন ১৯৫২ সালের ২ এপ্রিল সুনামগঞ্জ পৌর শহরের ষোলঘরে জন্মগ্রহণ করেন। সুনামগঞ্জ সরকারি কলেজের ছাত্র থাকা অবস্থায় তিনি মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহণ করেন। ছাত্রজীবন থেকেই সাংবাদিকতার সাথে যুক্ত ছিলেন তিনি। ‘দৈনিক পূর্ব দেশ’ ও ‘দৈনিক সংবাদ’ এর সুনামগঞ্জ সংবাদদাতা হিসাবে কাজ করেছেন বহুদিন। সুনামগঞ্জ থেকে প্রথম প্রকাশিত পত্রিকা ‘সাপ্তাহিক সুনাম’ তাঁর সম্পাদনায় প্রকাশিত হয়। এছাড়াও ‘রক্তাক্ত ৭১ সুনামগঞ্জ’, সহ কয়েকটি বই প্রকাশিত হয়েছে তাঁর। সুনামগঞ্জ জেলার মুক্তিযুদ্ধের উপর তাঁর লেখা বিভিন্ন নিবন্ধ পত্রপত্রিকায় প্রকাশিত হয়েছে। দীর্ঘ কয়েক বছর সুনামগঞ্জের মুক্তিযুদ্ধের উপর গবেষণার ফসল তাঁর ‘রক্তাক্ত ৭১ সুনামগঞ্জ’ গ্রন্থ। পেশায় তিনি একজন আইনজীবী ছিলেন। ১৯৯১ সালে সুনামগঞ্জ জেলা আইনজীবী সমিতির সাধারণ সম্পাদক ও ২০০০ সালে সভাপতির দায়িত্ব পালন করেন। দোয়ারাবাজার উপজেলার ‘মুক্তিযোদ্ধা ক্যাপ্টেন হেলাল খসরু হাইস্কুল এর অন্যতম প্রতিষ্ঠাতা ছিলেন তিনি। এছাড়াও সেক্টর কমান্ডার ফোরাম- মুক্তিযুদ্ধ ‘৭১ সুনামগঞ্জ জেলা শাখার সভাপতি, মুক্তিয্দ্ধু চর্চা ও গবেষণা কেন্দ্র সুনামগঞ্জের আহবায়ক ছিলেন। দৈনিক সুনামগঞ্জের খবরের উপদেষ্টা সম্পাদক ছিলেন তিনি। মৃত্যুকালে তিনি স্ত্রী, এক ছেলে ও এক মেয়ে রেখে গেছেন।
বৃহস্পতিবার সকাল থেকে পৃথক পৃথক স্থানে তাঁকে শেষ শ্রদ্ধা জানায় সুনামগঞ্জ মুক্তিযোদ্ধা সংসদ কমান্ড এবং বিভিন্ন উপজেলা কমান্ড, সংসদ সদস্য মহিবুর রহমান মানিকের নেতৃত্বে জেলা আওয়ামী লীগ, পরিকল্পনা মন্ত্রী এমএ মান্নানের পক্ষে সুনামগঞ্জ পৌরসভার মেয়র নাদের বখতসহ বিশিষ্টজনেরা, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতির পক্ষে পৌর মেয়রসহ দলীয় নেতারা। সংসদ সদস্য পীর ফজলুর রহমান মিসবাহ্’র পক্ষে দলীয় নেতারাসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক, পেশাজীবী, সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠন।

Print Friendly, PDF & Email

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর
themesbazarhaor24net
© All rights reserved © 2019 haor24.net
Theme Download From ThemesBazar.Com
error: Content is protected !!