1. haornews@gmail.com : admin :
  2. editor@haor24.net : Haor 24 : Haor 24
রবিবার, ০৩ জুলাই ২০২২, ০৮:১৯ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম ::
সুনামগঞ্জের দুর্যোগপীড়িতদের পাশে ‘লেখক, শিল্পী, সাংবাদিক ও প্রকাশক’ বৃন্দ সাঁওতাল বিদ্রোহ, নিপীড়িতের মাঝে দ্রোহের অগ্নিস্ফুলিঙ্গ ফের ঊর্ধ্বমুখী করোনা : ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানে বিধি-নিষেধ একাত্তরে মানবতাবিরোধী অপরাধে হবিগঞ্জের শফির প্রাণদণ্ড, তিনজনের আমৃত্যু কারাদণ্ড সুনামগঞ্জে বন্যায় মোট মৃতের অর্ধেকের বেশি দোয়ারাবাজারের বাসিন্দা ‘প্রাথমিকে নিয়োগ হবে আরও ৩০ হাজার শিক্ষক’ ‘দুষ্টু আমলাদের চাতুরির’ কারণে আইনকানুন পরিবর্তন করা যাচ্ছে না পদ্মা সেতু রক্ষার জন্য সবাইকে দায়িত্বশীল হতে হবে : ওবায়দুল কাদের সারা দেশে পশুর হাট বসবে ৪৪০৭টি, পরতে হবে মাস্ক ষড়যন্ত্রের কারণে পদ্মা সেতু নির্মাণে দুই বছর দেরি : প্রধানমন্ত্রী

প্রতিবন্ধী শিশুকে দিয়ে টিকটক ভিডিও তৈরির অভিযোগে তিনজন আটক

  • আপডেট টাইম :: সোমবার, ২৪ আগস্ট, ২০২০, ১২.১৩ এএম
  • ১৪৩ বার পড়া হয়েছে

বিশেষ প্রতিনিধি :
সুনামগঞ্জের তাহিরপুর উপজেলার বাণিজ‌্যিক কেন্দ্র বাদাঘাটে ভাইরাল করার উদ্দেশ‌্যে শারীরিক প্রতিবন্ধী কিশোর (দেখতে শিশুর মতো) শরিফকে দিয়ে টিকটকসহ বিভিন্ন ধরণের আপত্তিকর ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে দিচ্ছে একটি চক্র। এমন ঘটনায় জড়িত থাকার সন্দেহে পুলিশ বেশ কয়েকজনকে জিজ্ঞাসাবাদের জন‌্য আটক করেছে। একটি শারীরিক প্রতিবন্ধী কিশোরকে নিয়ে এমন বিকৃত মানসিকতার কারণে উপজেলাজুড়ে ক্ষোভ বিরাজ করছে।

পুলিশ সুত্রে জানা যায়, জুলাইয়ের শেষের দিকে উপজেলার বাণ্যিজিক কেন্দ্র বাদাঘাট বাজারের সততা স্টোরের মোজাম্মেল হকের ফেসবুক আইডি থেকে প্রশাসন ও সাংবাদিকদের দৃষ্টি আকর্ষণ করে কিশোর শরিফের ছবি ও একটি ভিডিও আপলোড করা হয়। ওই ভিডিওতে শরিফ জানায়, বাদাঘাটের কয়েক যুবক তাকে জোরপূর্বক মদ খাইয়ে বিভিন্ন রকমের টিকটক ভিডিও তৈরি করে তা ইউটিউভসহ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রচার করছে।

বিষয়টি সুনামগঞ্জ জেলা পুলিশ সুপার মো. মিজানুর রহমান পিপিএমের নজরে আসলে তার নির্দেশনায় তাহিরপুর থানার অফিসার ইনচার্জ আতিকুর রহমান ও বাদাঘাট পুলিশ ক্যাম্প ইনচার্জ এসআই মাহমুদুল হাসান বিষয়টি গোপনে তদন্ত শুরু করেন।

বৃহস্পতিবার দুপুরে শরিফের স্বীকারোক্তি অনুযায়ী ভিডিও ভাইরালের ঘটনার সাথে জড়িত থাকার সন্দেহে আলম শেখ (২৩), মোজাম্মেল হক (২২), মনির মিয়াসহ (১৯) বেশ কয়েকজন সন্দেহভাজন যুবককে আটক করে থানায় নিয়ে যায় পুলিশ।

শরিফ মিয়া (১৩) উপজেলার ৫নং বাদাঘাট ইউনিয়নের ঢালারপাড় (লাউড়েরগড়) গ্রামের সিরাজুল ইসলামের ছেলে। ৯ ভাই বোনের মধ্যে শরিফ ৭ম।

শরিফের মা জানিয়েছেন, জন্মের সময়ই শরিফ স্বাভাবিকের চেয়ে অনেকটা ছোট ছিল। স্থানীয় ডাক্তার কবিরাজ দেখিয়ে অনেক টাকা পয়সা খরচ করেও শরিফকে স্বাভাবিক করা যায়নি। ছোটবেলা থেকেই সে বাড়ির বাইরে থাকে অনেক চেষ্টা করেও তাকে বাড়ি নেয়া যায় না।

সুনামগঞ্জ জেলা পুলিশ সুপার মো. মিজানুর রহমান পিপিএম জানান, ভিডিও ভাইরালের ঘটনার সাথে জড়িত থাকার সন্দেহে আলম শেখ (২৩), মোজাম্মেল হক (২২), মনির মিয়া (১৯)সহ বেশ কয়েকজন সন্দেহভাজন যুবককে আটক করে থানায় নিয়ে গিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ চলছে। আটকৃতদের এবং ভিকটিম শরিফকে জিজ্ঞাসাবাদের পর ঘটনার সঙ্গে প্রকৃত জড়িতদের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

Print Friendly, PDF & Email

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর
themesbazarhaor24net
© All rights reserved © 2019 haor24.net
Theme Download From ThemesBazar.Com
error: Content is protected !!