1. haornews@gmail.com : admin :
  2. editor@haor24.net : Haor 24 : Haor 24
সোমবার, ১০ মে ২০২১, ০১:৪২ অপরাহ্ন

সুবিদা নিয়ে অবৈধ ড্রেজার মেশিনের বৈধতা দেন আক্কাস তসিলদার!

  • আপডেট টাইম :: শনিবার, ১০ আগস্ট, ২০১৯, ৭.১৭ এএম
  • ৮৯ বার পড়া হয়েছে

স্টাফ রিপোর্টার::
সুনামগঞ্জ সদর উপজেলার মোহনপুর ইউনিয়নের জয়নগর বাজার-পৈন্দা-মৈাহনপুর সড়কের পাশে সুরমা নদীর পাড়ে অবৈধভাবে ড্রেজার মেশিনে বালু ডাম্পিংয়ে আইনবিরোধী অনুমতি দেন পৈন্দা ইউনিয়ন ভূমি অফিসের বিতর্কিত তহসিলদার আক্কাস আলী। গত তিনদিন ধরে টানা ১১টা ড্রেজার মেশিনে বালু ডম্পিং করে নদীর তীর ও সড়ক ভাঙ্গনের মুখে ঠেলে দিয়েছে। এর পিছনে আক্কাস আলীর ভূমিকা আছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। তহসিলদার আক্কাস আলীর বিরুদ্ধে জেলা প্রশাসক বরাবরে অভিযোগ দায়েরের প্রস্তুতি নিচ্ছেন এলাকাবাসী।
জানা গেছে মাস খানেক আগে এখানে অবৈধভাবে শ্রমিকদের বঞ্চিত করে ড্রেজার মেশিনে বালু ডাম্পিং করায় ব্যবস্থা নিতে জেলা প্রশাসককে অনুরোধ করেন এলাকাবাসী। জেলা প্রশাসক তাৎক্ষণিকভাবে উপজেলা নির্বাহী অফিসারকে ব্যবস্থা নিতে নির্দেশ দেন। উপজেলা নির্বাহী অফিসার ইউনিয়ন ভূমি কর্মকর্তা আক্কাস আলীকে ব্যবস্থা নিতে নির্দেশ দেন। কিন্তু আক্কাস আলীর সঙ্গে ব্যবসায়ীদের সম্পর্ক ভালো থাকায় তিনি ব্যবস্থা নেওয়ার বদলে সময় ক্ষেপন করে ব্যবসায়ীদের ড্রেজার মেশিনে বালু ডাম্পিংয়ের সুযোগ করে দেন। পরে আবারও বিষয়টি জেলা প্রশাসককে অবগত করা হলে তিনি আরডিসিকে ভ্রাম্যমাণ আদাল পরিচালনা করে ব্যবস্থা নেওয়ার নির্দেশ দেন। আরডিসি কৌশলে তসিলদার আক্কাস আলীকে সঙ্গে না নিয়ে এবং তাকে বিষয়টি অবগত না করে সদর ইউনিয়ন ভূমি অফিসের তসিলদার সাব্বিরকে সঙ্গে নিয়ে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করে তিনটি ড্রেজার মেশিন আগুনে পুড়িয়ে দেন। এসময় স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান মো. নূরুল হক ঘটনাস্থলে ছুটে এসে আর কখনো ব্যবসায়ীদের আইনবিরোধী ড্রেজার চালানোর সুযোগ দেয়া হবেনা বলে ভ্রাম্যমাণ আদালতকে অবগত করেন। কিন্তু ব্যবসায়ীরা ইউনিয়ন ভূমি অফিসকে ম্যানেজ করে অবৈধভাবে ড্রেজার মেশিনে বালু ডাম্পিং করছে বলে এলাকাবাসীর অভিযোগ।
গত ৯ আগস্ট শুক্রবার পৈন্দা-মোহনপুর গ্রামের মানুষেরা শালিসে বসে ব্যবসায়ীদের এলাকার একমাত্র সড়কটি ড্রেজার মেশিনে বালু ডাম্পিং করে ভাঙ্গনের মুখে ঠেলে না দিতে অনুরোধ জানান। দুই গ্রামের প্রায় শতাধিক মানুষ শালিসে উপস্থিত থেকে একমাত্র সড়কটি রক্ষার জন্য প্রশাসনের কাছে অনুরোধ জানান। এলাকাবাসীকে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে শুক্রবার রাতেও ১১টি মেশিনে বালু ডাম্পিং করতে শুরু করে কয়েকজন ব্যবসায়ী। এলাকাবাসী জানিয়েছেন ড্রেজার মেশিন চালানোর জন্য তসিলদার আক্কাসকে সুবিদা দিয়ে থাকেন ব্যবসায়ীরা।
গত বৃহষ্পতিবার থেকে আবারও ১১টি ড্রেজার মেশিন লাগিয়ে রইছ মিয়া ও তার আত্নীয় স্বজনরা ড্রেজার বেশিনে বালু ডাম্পিং করছে। ১০ আগস্ট সকালে আবারও ১০টি ড্রেজার মেশিন লাগিয়ে বালু ডাম্পিং করছিল ব্যবসায়ীরা। তাৎক্ষণিকভাবে বিষয়টি জেলা প্রশাসককে অবগত করা হলে তিনি ইউএনওকে ব্যবস্থা নিতে নির্দেশ দেন। ইউএনও ইয়াসমিন নাহার রুমা ছুটিতে থাকায় তিনি তসিলদার আক্কাস আলীকে ব্যবস্থা নিতে নির্দেশ দিলে আক্কাস আলী খবর পেয়েই ব্যবসায়ীদের সঙ্গে যোগাযোগ করে ড্রেজার মেশিন সরিয়ে নেওয়ার কথা বলেন। এতে মেশিন নিয়ে সটকে পড়ে ব্যবসায়ীরা। আক্কাস আলীর বিরুদ্ধে অনিয়ম ও দুর্নীতির বিস্তর অভিযোগ রয়েছে। ওয়ান ইলেভেনে তার বিরুদ্ধে একাধিক অভিযোগও হয়েছিল।
এদিকে সদর উপজেলা ভূমি কর্মকর্তা এ ঘটনায় ভ্রাম্যমাণ আদালতের প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন বলে জানা গেছে। কিন্তু আক্কাস আলী ব্যবসায়ীদের সটকে পড়ার আহ্বান জানানোয় মেশিন নিয়ে সটকে পড়ায় আর অভিযান পরিচালনা সম্ভব হয়নি।
সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার ইয়াসমিন নাহার রুমা সাংবাদিকদের বলেন, ডিসি স্যার আমাকে নির্দেশ দিয়েছেন এখনই ব্যবস্থা নিতে। আমি ইউনিয়ন ভূমি কর্মকর্তাকে নির্দেশ দিয়েছি।
আক্কাস আলীর মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করলে প্রথমে তিনি ফোন ধরলেও পরে ফোন রিসিভ করেননি।

Print Friendly, PDF & Email

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর
themesbazarhaor24net
© All rights reserved © 2019 haor24.net
Theme Download From ThemesBazar.Com
error: Content is protected !!