1. haornews@gmail.com : admin :
  2. editor@haor24.net : Haor 24 : Haor 24
শুক্রবার, ০৩ ডিসেম্বর ২০২১, ১২:৫১ অপরাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম ::
আওয়ামী লীগ ১২ বছরে দেশে বিষ্ময়কর উন্নয়ন করেছে : পরিকল্পনামন্ত্রী এমএ মান্নান শহিদ বুদ্ধিজীবী দিবস, বিজয় দিবস ও সুনামগঞ্জ মুক্ত দিবস উদযাপন উপলক্ষে প্রস্তুতিমূলক সভা শুরু হলো বিজয়ের মাস ধর্মপাশায় গৃহবধূর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার তাহিরপুরে ভয়াবহ অগ্নিকান্ডে ২০ লক্ষাধিক টাকার ক্ষতি সুনামগঞ্জ সদর ও শান্তিগঞ্জের ৪ ইউনিয়নে জামানত হারালেন আ. লীগ প্রার্থী জনগণকে বিজয় উৎসর্গ করলেন মোহনপুরে বিজয়ী চেয়ারম্যান মঈন উল হক শান্তিগঞ্জে আ.লীগ ২, বিদ্রোহী ৩ ও বিএনপির স্বতন্ত্র ২জন চেয়ারম্যান জয়ী সুনামগঞ্জে আ.লীগের বিদ্রোহী ২জন, বিএনপির স্বতন্ত্র ৪জন, জাতীয় পার্টির দু’জন চেয়ারম্যান জয়ী সড়কে শিক্ষার্থীরা: দেখছেন গাড়ির লাইসেন্স ও কাগজপত্র

তাহিরপুরে কেন্দুয়া নদীপশ সেতু নির্মিত না হওয়ায় শতাধিক গ্রামের মানুষের দুর্ভোগ

  • আপডেট টাইম :: রবিবার, ২৩ অক্টোবর, ২০১৬, ৬.১৩ পিএম
  • ১৯৮ বার পড়া হয়েছে

হাবিব সরোয়ার আজাদ::
সুনামগঞ্জের তাহিরপুরে এক সময়ের বিআইডিসি (বড়) সড়কে একটি সেতু নির্মিত না হওয়ায় টানা ৩৫ বছর ধরে শতাধিক গ্রামের লোকজন এ সড়কে যাতায়াত করতে গিয়ে নানা দুর্ভোগ পোহাচ্ছেন। উপজেলার বড়দল উওর ও বড়দল দক্ষিণ  ইউনিয়নের সীমানার মাঝখান দিয়ে প্রবাহিত কেন্দুয়া নদীর বোরোখাড়া-কাউকান্দি খেয়াঘাটে জনগুরুত্বপূর্ণ এই সেতু নির্মাণের জন্য গত ৩৫ বছর ধরে শতাধিক গ্রামের লোকজন দাবি জানিয়ে আসলেও এলজিইডি সেই দাবির দিকে আজো মুখ তুলে থাকায়নি।
সরজমিনে গিয়ে এলাকাবাসী ও জনপ্রতিনিধিদের সাথে আলাপকালে জানা যায়, পাকিস্তান আমলে মহকুমা শহর র্ঊুমানে জেলা শহর সুনামগঞ্জের আঞ্চলিক সড়কের ওপর দিয়ে তাহিরপুর থানার ট্যাকেরঘাট চুনাপাথর খনি প্রকল্প এলাকার সাথে সংযোগ সড়ক নির্মার্ণের মধ্য দিয়ে  ছাতকের তৎকালীন আসাম-বাংলা সিমেন্ট ফ্যাক্টরীর কাঁচামাল চুনাপাথর পরিবহন ও যাতায়াতের জন্য বিআইডিসি নামে পরিচিতি এ (বড়) সড়কটি নির্মাণ করা হয়েছিলো। সময়ের ব্যবধানে প্রায় ৩৫ বছর পূর্বে সড়কের একটি অংশ পাহাড়ি ঢলে ভেঙ্গে গিয়ে কেন্দুয়া নদীর সাথে মিশে যায়। আর এখান থেকেই এ সড়ক ব্যবহারকারী উপজেলার বাদাঘাট, বড়দল উওর বড়দল দক্ষিণ, শ্রীপুর উওর ইউনিয়ন সহ ৪টি ইউনিয়নের শতাধিক গ্রামের লোকজনের যাতায়াতে গণদুভোর্গ সৃষ্টি হয়।’ উপজেলার বড়দল উওর ইউনিয়নের দু’বারের নির্বাচিত ইউপি চেয়ারম্যান আবুল কাসেম বলেন,  উপজেলার বাণিজ্যিক কেন্দ্র বাদাঘাট হয়ে কাউকান্দি বাজার, বালিয়াঘাট নতুন বাজার, পুরাতন ডাম্পের বাজার, শ্রীপুর বাজার বাজারে যাতায়াতকারী, বড়দল দক্ষিণ ইউনিয়নের কাউকান্দি বাজারের পাশে অবস্থিত কাউকান্দি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, কাউকান্দি মাদ্রাসা, কাউকান্দি উচ্চ বিদ্যালয়, কাউকান্দি মা ও শিশু কল্যাণ কেন্দ্র চিকিৎসা সেবা নিতে আসা লোকজন, বড়দল উওর ইউনিয়নের বোরোখাড়া মাদ্রাসা, বোরোখাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, বাদাঘাট ইউনিয়নের বিশেষ করে বাদাঘাট পাবলিক উচ্চ বিদ্যালয়, বাদাঘাট সরকারি ডিগ্রী কলেজ, বালিকা উচ্চ  বিদ্যালয়ের যাতায়াতকারী হাজারো শিক্ষার্থীকে এবং বাদাঘাট বাজার ও মা ও শিশূ কল্যাণ কেন্দ্রে চিকিৎসা সেবা নিতে আসা রোগীদের কেন্দুয়া নদীর ওপর বোরোখাড়া-কাউকান্দি খেয়াঘাট পাড়ি দিতে গিয়ে অতিরিক্ত সময় ব্যায় এবং গণভোগান্তির শিকার হতে হচ্ছে।’ তিনি আরো বলেন , জনগণের ৩৫ বছরের ভোগান্তি দুরীকরণে আমি জনপ্রতিনিধি হিসাবে একাধিকবার উপজেলা মাসিক সমন্বয় সভায় উপজেলা এলজিইডির দায়িত্বপ্রাপ্ত প্রকৌশলীদের নিকট সেতুটি নির্মাণের গুরুত্ব ও প্রয়োজনীয়তা তুলে ধরেছি, কিন্তু এলজিইডির দায়িত্বশীলরা এ সেতু নির্মাণের ব্যাপারে আজো মুখ তুলে থাকানোর সময় পাননি।’ বড়দল দক্ষিণ ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান আলহাজ্ব আজাহার আলী বলেন, শিক্ষার্থীদের দুভোর্গ ছাড়াও বাণিজ্যিক কেন্দ্র বাদাঘাট হয়ে সুনামগঞ্জ শহরে যাতায়াতকারী সাধারন লোকজন কম ভোগান্তি পোহাচ্ছেন না।’ শ্রীপুর উওর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান আলহাজ্ব খসরুল আলম বলেন, আশে পাশের শতাধিক গ্রামের লোকজন প্রতিনিয়ত এ সেতুর অভাবে যাতায়াত করতে গিয়ে গনহয়রানীর শিকার হচ্ছেন।’ তিনি আরো বলেন, অনেক সময় শ্রীপুর থেকে সীমান্ত সড়ক ট্যাকেরঘাট দিয়ে প্রায় ২০ থেকে ২৫ কি:মি: সড়ক ঘুরে বাদাঘাট যেতে হয়, আর এ কারনে বাণিজ্যিক কেন্দ্র বাদাঘাটে যাতায়াত করতে গিয়ে ভাটি অঞ্চলের লোকজন দিনে দিনে মুখ ফিরিয়ে নিচ্ছেন।’ বাদাঘাট সরকারি ডিগ্রী কলেজের শিক্ষার্থী কাউকান্দি গ্রামের পারভেজ আহমেদ, মোনায়েম হক মুরাদ, কাউকান্দি উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষক আজাহার  বলেন, এখানে সেতু না থাকায় বর্ষার সময় ঝুঁকি নিয়ে আমাদেরকে খেয়া বা ফেরী নৌকায় করে পারাপার হতে হয়, আমরা হেমন্তের সময় কাউকান্দি বাজারের পুর্ব -উওর দিকে আধা কিলোমিটার হাঁটার (ছোট) সড়ক পাড় হয়ে বড় সড়কে উঠতে গিয়ে ৪টি ভাঙ্গা স্থানে ৪টি বাঁশের ছাঁটাই’র অস্থায়ী সাঁকোর জন্য জনপ্রতি ৫ টাকা ও প্রতিটি মোটর সাইকেলের জন্য ১০ টাকা করে টোল দিতে হয়।’ তাহিরপুর উপজেলা প্রকৌশল দপ্তরের উপজেলা প্রকৌশলী শাহ মো. আবদুল ওয়াদুদ এ প্রতিনিধির সাথে আলাপকালে বলেন, এক সময় এটি বিআইডিসি সড়ক হিসাবে পরিচিতি ছিল, বর্তমাানে এ সড়কটি আনোয়ারপুর-বাদাঘাট-কাউকান্দি-ট্যাকেরঘাট সড়ক হিসাবে এলজিইডি চিহ্নিত করেছে।’ তিনি আরো বলেন, বড়দল উওর- বড়দল দক্ষিণ ইউনিয়নের মাঝ দিয়ে প্রবাহিত কেন্দুয়া নদীর বোরোখাড়া-কাউকান্দির খোয়াঘাটটি আমি শ্রীঘ্রই সরজমিনে পরিদর্শন করে এর গুরুত্ব বিবেচনা করে জরুরী ভিক্তিত্বে এখানে একটি সেতু নির্মার্ণের জন্য উধ্বর্তন কতৃপক্ষের নিকট প্রস্তাব পাঠাব।’

Print Friendly, PDF & Email

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর
themesbazarhaor24net
© All rights reserved © 2019 haor24.net
Theme Download From ThemesBazar.Com
error: Content is protected !!