1. haornews@gmail.com : admin :
  2. editor@haor24.net : Haor 24 : Haor 24
সোমবার, ২৪ জানুয়ারী ২০২২, ০১:০৩ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম ::
অযত্ন অবহেলায় মধ্যনগর কেন্দ্রীয় শহিদ মিনার নিয়ম বহির্ভূত ফি ফেরত দিচ্ছে সুনামগঞ্জ সরকারি এসসি গার্লস হাইস্কুল কর্তৃপক্ষ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের জন্য ১১ দফা নির্দেশনা নাসিক প্রমাণ দিল দলীয় সরকারের অধীনেও সুষ্ঠু নির্বাচন সম্ভব শাবিপ্রবি শিক্ষকদের সাথে সন্ধ্যায় আলোচনায় বসবেন শিক্ষামন্ত্রী অনশনের ৬০ ঘণ্টা: মুখে স্যালাইনও নিচ্ছেন না, বাড়ছে ঝুঁকি শাবিপ্রবিতে অনশন: ১৬ জন হাসপাতালে ভর্তি শাবি’র সংকটে সাস্টিয়ান সুনামগঞ্জ এর উদ্বেগ শাল্লায় ফসলরক্ষা বাঁধের কাজে দুর্নীতির প্রতিবাদ করায় মামলার আসামি হলেন চেয়ারম্যান বৃটিশ মন্ত্রী-এমপির উপস্থিতিতে পররাষ্ট্রমন্ত্রী বললেন, র‌্যাব সৃষ্টি করেছে, প্রশিক্ষণ দিয়েছে আমেরিকা-বৃটেন!

বিশ্বম্বম্ভরপুরে কারিগড়ি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান চালুর দাবি এলাকাবাসীর

  • আপডেট টাইম :: রবিবার, ২৮ আগস্ট, ২০১৬, ৮.৩৮ এএম
  • ১৯৭ বার পড়া হয়েছে

জাকির হোসেন, বিশ্বম্ভরপুর::
সুনামগঞ্জের বিশ্বম্ভরপুর উপজেলায় সরকারি কোনো কারিগরি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান না থাকায় গড়ে ওঠছেনা দক্ষ জনশক্তি। ফলে তরুণদের বিরাট একটি গোষ্ঠী বেকার আছে। বেকার থাকার ফলে এই তরুণরা নানা অসামাজিক কার্যক্রমে জড়িয়ে পড়ছে। দক্ষ জনশক্তি ও মানবিক মূল্যবোধে গড়ে ওঠা প্রজন্মের জন্য কারিগড়ি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান চালুর দাবি জানিয়েছেন উপজেলাবাসী।
জানা গেছে উপজেলায় নন এমপিওভুক্ত টেকনিক্যাল কলেজ ১টি, নন এমপিও ভুক্ত কলেজ ১টি, এমপিও ভুক্ত ডিগ্রী কলেজ ১টি। এমপিওভুক্ত ফাজিল মাদ্রাসা ১টি, এমপিওভুক্ত উচ্চ বিদ্যালয় ১০টি, দাখিল মাদ্রাসা ৬ টির মধ্যে এমপিওভুক্ত ৩টি, ননএমপিওভুক্ত ৩টি। উপজেলার ১৮০ গ্রামের প্রায় ৩ লাখ মানুষের জন্য মাত্র ২০টি মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক উচ্চ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান রয়েছে। জনসংখ্যা অনুপাতে উচ্চ মাধ্যমিক কলেজ পর্যায় মাত্র  ২০টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। তবে সরকারি কোন গারিগড়ি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান না থাকায় শিক্ষার্থীরা পিছিয়ে আছে।
জন সংখ্যার তুলনায় বিশ্বম্ভরপুর উপজেলায় উচ্চ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান একেবারে নেই বললেই চলে। উপজেলার জন সংখ্যা প্রায় তিন লাখ ছাড়িয়ে। অন্য দিকে রয়েছে ২৭৫ টি গ্রাম। প্রায় ৬০টি গ্রামের জন্য ১টি মাত্র কলেজ। প্রায় ১০টি গ্রামের জন্য ১টি মাত্র উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা প্রতিষ্টান। তাছাড়া দুর্গম এলাকার কারণে কোনো কোন শিক্ষার্থী কে প্রায় ১০কিলোমিটার পযর্ন্ত পায়ে হেটে শিক্ষা প্রতিষ্টানে যেতে হয়।
শক্তিয়ার খলা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক শাহানুর আলম বলেন, আমার বিদ্যালয়ে ছাত্র -ছাত্রী সংখ্যা ৯৩৭ জন। কিন্তু শ্রেণী কক্ষে পর্যাপ্ত  বসার ব্যবস্তা না থাকায় ছাত্র -ছাত্রীদের অনেক সময় দাড়িয়ে ক্লাস করতে হয়। আমাদের অবকাঠামো উন্নয়ন জরুরি।
এলাকাবাসী ননএমপিও প্রতিষ্ঠানগুলো এমপিওর পাশাপাশি সরকারিভাবে একটি কারিগড়ি প্রতিষ্টান চালুর দাবি জানান।

Print Friendly, PDF & Email

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর
themesbazarhaor24net
© All rights reserved © 2019 haor24.net
Theme Download From ThemesBazar.Com
error: Content is protected !!