1. haornews@gmail.com : admin :
  2. editor@haor24.net : Haor 24 : Haor 24
মঙ্গলবার, ২৫ জুন ২০২৪, ০৭:৫৮ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম ::

আমেরিকার মতো ভিসা নীতি আছে আমাদেরও: পরিকল্পনামন্ত্রী

  • আপডেট টাইম :: বৃহস্পতিবার, ২২ জুন, ২০২৩, ১২.৩০ এএম
  • ৬৩ বার পড়া হয়েছে

হাওর ডেস্ক::
পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান বলেছেন, ‘ভিসা প্রত্যেকটি দেশের অভ্যন্তরীণ বিষয়। আমেরিকা তাদের ভিসানীতি করেছে ভালো কথা। যারা নির্বাচনে বাধা দেবে, আগুন সন্ত্রাস করবে, ভোটারদের ভোট দিতে দেবে না, আমেরিকা তাদের ভিসা দেবে না, তা ইতিবাচক। আমেরিকার মতো আমাদেরও ভিসানীতি আছে।

আমরাও তো স্বাধীনতাবিরোধীদের ভিসা দিই না।’
আজ বুধবার গুলশানের একটি হোটেলে আয়োজিত কনসার্ন ওয়ার্ল্ডওয়াইড বাংলাদেশ অয়োজিত ‘টেকসই উন্নয়নে বাংলাদেশের পুষ্টি নিরাপত্তা শীর্ষক’ এক কর্মশালায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

পরিকল্পনামন্ত্রী বলেন, ‘ভারত-আমেরিকা-ফ্রান্সেও সব দল নির্বাচনে আসে না। তাদের দেশে তো ভোট হয়।

খেলার জন্য মাঠে নামতে হয়। আপনারা মাঠে নামবেন না আর বলবেন খেলা হবে না, তা তো হয় না। ফুটবলে রেফারি থাকে তেমনি নির্বাচনের খেলায় নির্বাচন কমিশন আছে। খেলতে গিয়ে মাঠে না নেমে কেউ যদি বলে আমি খেলতে দেব না, এটা বলা যায় না, এটা চলে না।

এ সময় বিরোধীদের সমালোচনা করে মন্ত্রী বলেন, ‘কেউ নির্বাচনে অংশ না-ই নিতে পারে, কিন্তু নির্বাচন হতে দেবে না, এমন কথা বলার অধিকার কারো নেই। তিনি আরো বলেন, ভারত বা চীন যেই বন্ধুত্বের হাত বাড়াবে সরকার তার হাতই ধরব। তারা আমাদের বন্ধু রাষ্ট্র, আমাদের কারো সাথে শত্রুতা নেই। সবার সাথে আমরা এক হয়ে কাজ করতে চাই।’

তিনি আরো বলেন, বিরোধীরা সব সময় ভোট চুরির অভিযোগ করলেও ইউরোপীয় ইউনিয়নসহ বিদেশি বন্ধুদের কাছে ভোট চুরি বা অনিয়মের কোনো প্রমাণ দিতে পারেনি।

তারা শুধু অভিযোগ দেয়, কোনো প্রমাণ দেয় না।
বর্তমানে কিছুটা বিদ্যুৎ সমস্যা আছে স্বীকার করে মন্ত্রী বলেন, ‘বিদ্যুতের এখন কিছুটা সমস্যা আছে, তবে ঘরে ঘরে যে বিদ্যুৎ পৌঁছনো হয়েছে এই সরকার না হলে তা হতো না, এটাও সত্য। আমি আমার এলাকায় প্রচুর যাতায়াত করি। মানুষের খোঁজখবর নিই। যেখানে গেলে গ্রামে ঢুকলে নিম্ন আয়ের মানুষ যারা আছে তারা আমার কাছে এসে কী চায় জানেন? তারা সড়ক, সেতু, বিদ্যুৎ চায় না, তারা চায় খাবার পানি, টিউবওয়েল, তারা চায় ভাতার কার্ড।’

এ সময় সংক্ষিপ্ত বক্তব্যে বাংলাদেশে ইউরোপীয় ইউনিয়নের রাষ্ট্রদূত চার্লস হুইটলি বলেন, ‘খাদ্যও পুষ্টি নিরাপত্তাবিষয়ক কর্মকাণ্ডে বাংলাদেশের সঙ্গে ইউরোপীয় ইউনিয়ন এক হয়ে কাজ করবে। আমার প্রত্যাশা থাকবে বাংলাদেশ পুষ্টি নিরাপত্তার ক্ষেত্রে আরো উদ্ভাবনী কাজগুলো করবে। তারা তাদের দেশের অভ্যন্তরীণ উৎপাদন বাড়াবে এবং পুষ্টি বিষয়ক নিরাপত্তা কর্মসূচি আরো জোরদার করতে হবে।’

তিনি আরো বলেন, ‘আমরা বাংলাদেশের জনগণের জন্য একটি স্বাস্থ্যকর ও অপুষ্টি মুক্ত ভবিষ্যৎ তৈরি করতে চাই। খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণ এবং নিরাপদ খাদ্যের দেশ হওয়ার পথে বাংলাদেশের সহযোগী হতে পেরে আমরা আনন্দিত এবং পুষ্টি নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে আমরা এই একত্রে চলা আরো অগ্রসর করতে চাই।’

কর্মশালায় কনসার্ন ওয়ার্ল্ডওয়াইড কান্ট্রি ডিরেক্টর মানিশ কুমার আগরওয়াল বলেন, বাংলাদেশ পুষ্টি ও খাদ্য নিরাপত্তায় উল্লেখযোগ্য উন্নতি করেছে। যদিও বাংলাদেশ সরকার অপুষ্টি নিরসনে কঠোর প্রতিশ্রুতিবদ্ধ, কিন্তু সাম্প্রতিক সময়ে মহামারি এবং জলবায়ু পরিবর্তন দারিদ্র্যসীমার নিচে বসবাসকারী জনগণের ক্ষুধা ও পুষ্টি নিয়ে দুশ্চিন্তা ব্যাপকভাবে বাড়িয়ে দিয়েছে। এ সময় তিনি বাংলাদেশে পুষ্টি ও খাদ্য নিরাপত্তাকেন্দ্রিক সুশাসন জোরদার করতে নীতিমালা প্রণয়ন ও বাস্তবায়নে সরকার, বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থা এবং সংশ্লিষ্ট অন্যান্য খাতকে আহ্বান জানান।

কর্মশালায় বক্তারা বলেন, ইউরোপীয় ইউনিয়ন জাতীয় ও স্থানীয় উভয় পর্যায়ে পুষ্টি সুশাসন ব্যবস্থা জোরদার করতে বাংলাদেশ সরকারকে সহায়তা করছে। যা দেশকে ২০৩০ সালের মধ্যে টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা (এসডিজি) অর্জনের দিকে এগিয়ে যেতে সাহায্য করবে। ইউরোপীয় ইউনিয়ন গোটা উন্ননয়শীল দেশগুলোর মধ্যে ২০২১ সালের ডিসেম্বর মাসে টোকিওতে অনুষ্ঠিত নিউট্রিশন ফর গ্রোথ (এনফরজি) সামিটে এই কমিশন অপুষ্টির সকল অবস্থা দূরীকরণে ২০২১-২০২৪ সালে ২.৫ বিলিয়ন ইউরো প্রদানের ঘোষণা দিয়েছে। এই সহায়তা জরুরি প্রয়োজনীয়তা, অপুষ্টির কারণসমূহ নিরসন এবং ইইউ সহযোগী দেশসমূহে দীর্ঘমেয়াদি খাদ্য পদ্ধতি রূপান্তরে অবদান রাখবে।

Print Friendly, PDF & Email

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর
themesbazarhaor24net
© All rights reserved © 2019-2024 haor24.net
Theme Download From ThemesBazar.Com
error: Content is protected !!