1. haornews@gmail.com : admin :
  2. editor@haor24.net : Haor 24 : Haor 24
শনিবার, ১৫ জুন ২০২৪, ০৯:৪৬ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম ::
চলে গেলেন শাল্লার বীরাঙ্গনা মুক্তিযোদ্ধা জমিলা বেগম সুনামগঞ্জ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের সিন্ডিকেট মেম্বার হলেন মান্নান-সাদিক এমপি সুনামগঞ্জ সদর উপজেলা পার্কে নারী নির্যাতন: তিন বখাটে গ্রেপ্তার কানাডাকে হারিয়ে স্বস্তির জয়ে টিকে রইল পাকিস্তান ভারতে এই তীব্র গরমে আরও ৮ জনের মৃত্যু নারায়ণগঞ্জে ফ্ল্যাটের বারান্দায় ঝুলন্ত কলেজ ছাত্রের মরদেহ রূপার চেইনের জন্য ধর্ষণের পর শিশুটিকে হত্যা করা হয়েছে: র‌্যাব সিলেট টিলা ধসে মৃত্যুর ঘটনায় জেলা প্রশাসনের তদন্ত কমিটি লেবাননের বিপক্ষে হেরে বিশ্বকাপ বাছাই থেকে শেষ বাংলাদেশ বাংলাদেশের নাটকীয় পরাজয়ে তামিম-মরকেল-ওয়াকারদের নিয়ম পুনর্বিবেচনায়

জগন্নাথপুর উপজেলা নির্বাচনে চেয়ারম্যান প্রার্থী মুক্তার মূল লড়াইয়ের সম্ভাবনা

  • আপডেট টাইম :: শনিবার, ১৮ ফেব্রুয়ারী, ২০১৭, ৬.২১ পিএম
  • ৮৭৪ বার পড়া হয়েছে

স্টাফ রিপোর্টার::
জগন্নাথপুর উপজেলা পরিষদের আসন্ন নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে মাঠে তুমুল আলোচনায় আছেন তরুণ রাজনীতিবিদ মুক্তাদীর আহমদ মুক্তা। জনগণ মনোনীত আওয়ামী লীগ মনোনয়ন বঞ্চিত এই তরুণ নির্বাচনী মাঠে প্রচারণায় আওয়ামী লীগ প্রার্থী আকমল হোসেন এবং বিএনপি প্রার্থী আতাউর রহমানের চেয়েও এগিয়ে আছেন। একজন ভালো বক্তা, পরিচ্ছন্ন রাজনীতিবিদ ও নিবেদিতপ্রাণ সমাজকর্মী হিসেবে গত সাত বছর তিনি ভাইস চেয়ারম্যানের দায়িত্ব পালন করে তৃণমূল মানুষের কাছে পৌঁছেছিলেন। নানা কারণে ভোটার ও বিশ্লেষকরা মুক্তাদীর মূল লড়াইয়ে থাকবেন বলে মতপ্রকাশ করেছেন।
আগামী ৬ মার্চের নির্বাচনকে কেন্দ্র করে প্রবাসী অধ্যুষিত এই উপজেলায় এখন জমজমাট প্রচারণা লক্ষ্য করা গেছে। তবে প্রবাসীরা নানা জটিলতার কারণে এবার প্রার্থী হতে না পরায় নির্বাচনী রঙ অনেকটা ম্লান। টাকার গরমে প্রবাসী প্রার্থীরা মাঠে না থাকায় এক শ্রেণির ভোটারদের মন খারাপ।
নির্বাচনী বিশ্লেষককরা জগন্নাথপুরে চেয়ারম্যান পদে ত্রিমুখি নির্বাচন হবে। উপজেলার পশ্চিম দক্ষিণাঞ্চলের একক প্রার্থী হিসেবে স্বতন্ত্র প্রার্থী মুক্তাদীর আহমদ রয়েছেন আলোচনায়। তিনটি ইউনিয়নের তৃণমূল জনগণ প্রার্থী হতে তাকে ইতোমধ্যে সমর্থন জানিয়েছেন। তাছাড়া গত সাত বছর ধরে ভাইস চেয়ারম্যানের দায়িত্ব পালনকালে তৃণমূল জনগণের সঙ্গে সম্পর্কের কারণেও তিনি মাঠজরিপে শক্ত অবস্থানে রয়েছেন। দ্বিধারায় বিভক্ত জগন্নাথপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের একটি অংশ শেষ মুহুর্তে মুক্তাদীরকে সমর্থন জানাতে পারে বলে বিষেøকরা জানিয়েছেন। এতে মূল প্রতিদ্বন্ধিতায় চলে আসতে পারেন মুক্তা। ফলে বিপাকে পড়তে পারেন আওয়ামী লীগ প্রার্থী আকমল হোসেন। বিএনপি প্রার্থী আতাউর রহমানের ব্যক্তিগত ইমেইজ ভালো থাকলেও নৌকার আখড়া হিসেবে পরিচিত উপজেলায় শেষ মুহুর্তে তিনি মূল লড়াই থেকে ছিটকে পড়তে পারেন।
সুধীজনের মতে একজন শিক্ষিত, ভদ্র, বিনয়ী, সৎ ও তুখোর বক্তা হিসেবে সর্বমহলে মুক্তাদীর আহমদের গ্রহণযোগ্যতা রয়েছে। শিক্ষা-সংস্কৃতি ও সাংবাদিকায়ও রয়েছে তার গুরুত্বপূর্ণ অবদান। এসব বিবেচনায়ও ভোটাররা তার প্রতি মুº।
স্বতন্ত্র প্রার্থী মুক্তাদীর আহমদ মুক্তা বলেন, তৃণমূল জনগণ আমাকে প্রার্থী করেছেন। আমার প্রার্থীতা বাতিলে নানা ষড়যন্ত্র হলেও জনগণের দোয়া ও সমর্থনে টিকে আছি। আশা করি পশ্চাদপদতা,প্রতিহিংসা,কুপুমুন্ডুকতা ও প্রতিক্রিয়াশীল, কতৃত্ববাদী ধ্যান ধারণার বিপরীতে টেকসই উন্নয়ন, আধুনিক, মুক্তচিন্তা, মানবিকতা, শান্তি, সমৃদ্ধি ও প্রগতির পক্ষে আমাকে সমর্থন করবেন।

Print Friendly, PDF & Email

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর
themesbazarhaor24net
© All rights reserved © 2019-2024 haor24.net
Theme Download From ThemesBazar.Com
error: Content is protected !!