1. haornews@gmail.com : admin :
  2. editor@haor24.net : Haor 24 : Haor 24
বুধবার, ৩০ নভেম্বর ২০২২, ০৮:২৩ অপরাহ্ন

দিরাইয়ে হাসপাতালে ডুকে ডাক্তারদের লাঞ্চিত করল উপজেলা চেয়ারম্যানের স্বজনরা

  • আপডেট টাইম :: রবিবার, ১২ এপ্রিল, ২০২০, ১১.৩৮ এএম
  • ৫৪৭ বার পড়া হয়েছে

স্টাফ রিপোর্টার::
সুনামগঞ্জের দিরাইয়ে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের ইমার্জেন্সিতে কর্তব্যরত ডাক্তারকে জোর করে বাসায় রোগী দেখার জন্য নিতে চাওয়ায় এবং রোগী ফেলে ডাক্তার যেতে না চাওয়ায় তাকে লাঞ্চিত করেছে উপজেলা চেয়ারম্যান মঞ্জুর আলম চৌধুরীর স্বজনেরা। এ ঘটনায় অন্যান্য ডাক্তার, নার্স ও হাসপাতালের কর্মীরা তাদেরও অশ্লীল ভাষায় গালিগালাজি করা হয়েছে। করোনাকালে কর্তব্যরত ডাক্তারদের সঙ্গে অসৌজন্য আচরণ ও হুমকি ধমকি দেওয়ায় নিন্দা জানিয়েছে সুনামগঞ্জ বিএমএ। তারা দোষীদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়ার দাবি জানিয়েছেন।
জানা গেছে সকালে ইমার্জেন্সিতে বসে কাজ করছিলেন এক ডাক্তার। এসময় দিরাই উপজেলা চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর আলম চৌধুরীর ভাগ্নে পরিচয়ে রাজীব নামের এক যুবক এসে ইমার্জেন্সিতে কর্তব্যরত ডাক্তার রাজিব সরকারকে উপজেলা চেয়ারম্যান অসুস্থ বলে জোরপূর্বক বাসায় নিয়ে যেতে চায়। কর্তব্যরত ডাক্তার ইমার্জেন্সি ফেলে কোন বাসায় রোগী দেখতে যেতে পারেবনা জানিয়ে উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তাকে বিষয়টি জানানোর অনুরোধ করেন। এসময় ওই রাজীব কর্তব্যরত ডাক্তারকে গালিগালাজ করে বেরিয়ে যান। কিছুক্ষণ পরেই উপজেলা চেয়ারম্যানের ছেলে, এক ভাইসহ আরো কয়েকজনকে নিয়ে কর্তব্যরত ডাক্তারের চেম্বারে এসে তাকে গালাগালি শুরু করে ডাক্তারের চেয়ার লাথি মেরে ফেলে দেয়। এসময় চেয়ারম্যানের ভাই ডাক্তারের দিকে মসজিদের দানবাক্স নিয়ে মাথায় বাড়ি দিতে যান। অন্যরাও ডাক্তারকে অশ্লীল ভাষায় গালাগালি করে রাস্তায় এনে পিঠানোর নির্দেশ দেয়। এই হৈচৈয়ের মধ্যে উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা মাহবুবুর রহমান স্বপন ছুটে আসলে তাকে ও সঙ্গের অন্য দুই ডাক্তারসহ কর্মীদের গালাগালি শুরু করে। এসময় উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা একজন ডাক্তারকে উপজেলা চেয়ারম্যানের স্বজনদের সঙ্গে বাসায় পাঠিয়ে দিয়ে পরিস্থিতি শান্ত করেন। এ দিকে এ ঘটনায় হাসপাতালের ডাক্তার ও নার্সদের মধ্যে আতঙ্ক বিরাজ করছে।
কর্তব্যরত ডাক্তার বলেন, ‘আমি ইমারজেন্সি ছেড়ে যেতে পারতাম, কিন্তু তখন যদি একজন শ্বাসকষ্টের রোগী আসতেন, তখন ইমার্জেন্সিতে কে রোগী দেখত? চেয়ারম্যান সাহেবের ভাই, ছেলে আর ভাগিনা??? আমি যাইনি, তাই উনারা হুমকি দিয়েছেন। এই মহামারীর সময়ে আমরা ঝুঁকি নিয়ে কাজ করছি। এর মাঝে এই রকম হুমকি, গালাগালি শুনলে আর কাজ করতে ইচ্ছে করে না। তখন মনে হয় এদেশে সবচেয়ে বড় পাপ ক্ষমতাশালী না হওয়া, দ্বিতীয় পাপ ডাক্তার হওয়া।
এ বিষয়ে উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা মাহবুবুর রহমান বলেন, ইমার্জেন্সি ডাক্তারের সঙ্গে চেয়ারম্যান সাহেবের আতœীয়রা খারাপ আচরণ করেছে। পরে বাসায় গিয়ে ডাক্তার চেয়ারম্যান সাহেবকে দেখে আসছেন। তবে বিষয়টি মিটমাট হয়ে গেছে।
সুনামগঞ্জ বিএমএ’র সাংগঠনিক সম্পাদক ডা. সৈকত দাস বলেন, করোনার এই ভয়াল থাবায় জীবনবাজি রেখে ডাক্তাররা চিকিৎসা দিচ্ছেন। এর মধ্যে প্রভাবশালীরা হাসপাতালে ডুকে যেভাবে ডাক্তারদের অশ্লীল ভাষায় গালাগালি করছে, রাস্তায় ফেলে পিটানোর কথা বলছে, হুমকি ধমকি দিয়েছে তা নিন্দনীয়। এমন ঘটনায় জড়িতদের শাস্তি চাই। পাশাপাশি ডাক্তারদের নিরাপত্তা দেওয়া হোক। তিনি বলেন, ইমার্জেন্সি ছেড়ে প্রভাবশালী রোগীকে দেখতে হবে সরকার এমন কোন নির্দেশনা দেয়নি। এদের বিচার না হলে বারবার এভাবে ডাক্তারদের সঙ্গে খারাপ আচরণ করবে।

Print Friendly, PDF & Email

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর
themesbazarhaor24net
© All rights reserved © 2019 haor24.net
Theme Download From ThemesBazar.Com
error: Content is protected !!