1. haornews@gmail.com : admin :
  2. editor@haor24.net : Haor 24 : Haor 24
সোমবার, ১৮ অক্টোবর ২০২১, ০২:১০ অপরাহ্ন

জামালগঞ্জে জিন্নাহর নামে প্রতিষ্ঠিত বিদ্যালয়ের নাম পরিবর্তনের দাবি

  • আপডেট টাইম :: সোমবার, ১২ ডিসেম্বর, ২০১৬, ৪.৩৭ পিএম
  • ১৬২ বার পড়া হয়েছে

স্টাফ রিপোর্টার::
সুনামগঞ্জের জামালগঞ্জ উপজেলায় রূপাবালি গ্রামে কায়দে আজম মোহাম্মদ আলী জিন্নাহর নামে ‘জিন্নাহ মেমোরিয়েল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়’র নাম পরিবর্তনের দাবি জানিয়েছে বিভিন্ন সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠন। সোমবার দুপুরে জামালগঞ্জ উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা বরাবরে নাম পরিবর্তনের দাবিতে স্মারকলিপি প্রদান করেছে ‘বাংলাদেশ উদীচী শিল্পী গোষ্ঠী’ জামালগঞ্জ শাখা। গত কয়েক মাস সুনামগঞ্জ জেলা প্রশাসক বরাবরে এই বিদ্যালয়টির নাম পরিবর্তন করে দেশের মুক্তিযুদ্ধের সপক্ষের কোন ব্যাক্তির নামে নামকরণের দাবি জানিয়েছিল সুনামগঞ্জ মুক্তিযুদ্ধ স্মৃতি পরিষদ। গতকাল সোমবার জামালগঞ্জ উপজেলা উদীচীর সভাপতি আকবর হোসেন স্মারকলিপি প্রদান করেন।
স্মারকলিপির অনুলিপি গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের প্রধানমন্ত্রী, প্রাথমিক ও গণ শিক্ষা মন্ত্রী, সুনামগঞ্জ- ১ আসনের সংসদ সদস্য, শিক্ষা সচিব, সুনামগঞ্জের জেলা প্রশাসক, জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা ও জামালগঞ্জের  উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে দেওয়া হয়েছে।
জানা গেছে, জামালগঞ্জ উপজেলার সাচনাবাজার ইউনিয়নে পাকিস্তান ভারত বিভাজনের পর ১৯৪৭ সালে কায়েদে আযম মোহাম্মদ আলী জিন্নাহ’র নামে রূপাবাাল গ্রামে একটি প্রাথমিক বিদ্যালয় স্থাপিত হয়। দেশ বিভাজনের সময়ে জামালগঞ্জ উপজেলার সাচনা বাজার ইউনিয়নের রুপাবালী আর দক্ষিন সুনামগঞ্জের কান্দাগাও  গ্রামবাসীর উদ্যোগে বিদ্যালয়টি প্রতিষ্টা করা হয়। দুই গ্রামের মানুষের মধ্যে নাম নিয়ে জঠিলতা দেখা দিলে রুপাবালী গ্রামের ভুমি দাতা আব্দুর রাজ্জাক তৎকালীন সময়ে পাকিস্তানের জাতির পিতাকে খুিশ করতে তার নামে বিদ্যালয়ের নাম রাখেন ‘জিন্নাহ মেমোরিয়েল’ প্রাথমিক বিদ্যালয়। এরপর থেকেই এই নামেই বিদ্যালয়টির কার্যক্রম পরিচালিত হচ্ছে। জানা গেছে, ১৯৭১ সনের মুক্তিযুদ্ধের পর স্থানীয় মুক্তিযোদ্ধারা বিদ্যালয়টির নাম পরিবর্তনের দাবি জানান। কিন্তু ১৯৭৫ সালের ১৫ ই আগস্ট বঙ্গবন্ধুকে হত্যার পর এ বিষয়টি চাপা পড়ে। দু’টি আবেদনেই মোহাম্মদ আলী জিন্নার নাম বাদ দিয়ে মুক্তিযোদ্ধা কারো নামে নামকরণের দাবি জানানো হয়।
সুনামগঞ্জ মুক্তিযুদ্ধ স্মৃতি পরিষদের আহ্বায়ক মুক্তিযোদ্ধা আবু সুফিয়ান বলেন, আমরা এই বিদ্যালয়টির নাম পরিবর্তন করে মুক্তিযোদ্ধাদের মধ্যে থেকে কারো নামে নামকরণের দাবি জানিয়েছি কয়েক মাস আগে। আমরা স্বাধীন দেশে এই কলঙ্কতিলক রাখতে চাইনা। তাই দ্রুত এই বিদ্যালয়টির নাম পরিবর্তন জরুরি।

Print Friendly, PDF & Email

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর
themesbazarhaor24net
© All rights reserved © 2019 haor24.net
Theme Download From ThemesBazar.Com
error: Content is protected !!