1. haornews@gmail.com : admin :
  2. editor@haor24.net : Haor 24 : Haor 24
শনিবার, ২৫ জুন ২০২২, ০৮:০৭ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম ::
তাহিরপুরে আদিবাসী কিশোরীকে ধর্ষণচেষ্ঠা, দু’জনকে পুলিশে দিলো জনতা সুনামগঞ্জ ছাত্র ইউনিয়নের ভানবাসি মানুষদের মাঝে ত্রাণ সহায়তা যতদিন বন্যা পরিস্থিতি ততদিন বানভাসিদের পাশে থাকবে বিজিবি : সিলেট সেক্টর কমান্ডার পর্যাপ্ত ত্রাণ সহায়তা ও সুনামগঞ্জকে দূর্গত এলাকা ঘোষণার দাবি: রুহিন হোসেন প্রিন্স সুনামগঞ্জে বন্যা পরিস্থিতির উন্নতি, ত্রাণের জন্য হাহাকার সুনামগঞ্জের দুর্গম এলাকায় দিনভর ত্রাণ দিলো জেলা প্রশাসন সুনামগঞ্জের বন্যার্তদের মধ্যে নিরাপদ পানি ও শুকনো খাবার বিতরণ করছে বিআইডব্লিটিএ বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত বিদ্যুত লাইন সংস্কারের কাজ করতে গিয়ে একজনের মৃত্যু ইলা কিয়ামতি বইন্যা দেখিনি নিজেদের রেশন থেকে বানভাসিদের ত্রাণ দিচ্ছে সুনামগঞ্জ বিজিবি

চলে গেলেন নিভৃতচারী বাউল সাধক ফকির শমছুল

  • আপডেট টাইম :: বুধবার, ৭ মার্চ, ২০১৮, ১১.৪২ এএম
  • ২৭৩ বার পড়া হয়েছে

স্টাফ রিপোর্টার::
সুনামগঞ্জের নিভৃতচারী বাউল ফকির শামছুল (৭৬) মারা গেছেন। মঙ্গলবার রাত ১টার দিকে দক্ষিণ সুনামগঞ্জ উপজেলার দরাদরপুর ড়ুভপসা বাড়িতে বার্ধক্যজনিত রোগে ভোগে মারা যান নিভৃতচারী এই বাউল। সুনামগঞ্জের মরমী ধারার ইতিহাসে তাকে তাঁর সময়ের সবচেয়ে উজ্জ্বল হিসেবে বিবেচনা করা হয়। মৃত্যুকালে তিনি স্ত্রীসহ অসংখ্য গুণগ্রাহী রেখে মারা যান। বুধবার বেলা সাড়ে ৩টায় গ্রামের মাঠে যানাজা শেষে তাকে দাফন করা হয়। তার মৃত্যুতে শোক জানিয়েছেন সুনামগঞ্জের সাংষ্কৃতিক অঙ্গনের লোকজন। তারা শোক সন্তপ্ত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জানান।
ফকির শমছুল ১৩৪৮ বাংলায় দক্ষিণ সুনামগঞ্জ উপজেলার আক্তাপাড়া গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। তাঁর পিতা লাল মোহাম্মদ, মাতা সোনাভান বিবি। পাঁচ বছর বয়সে তিনি মাতৃহারা হন। প্রথম যৌবনেই সংসারের মায়া ত্যাগ করে পিরে কামিল শাহ নয়ান ভানু আহমেদ আলীকে মুর্শিদ হিসেবে বরণ করে সাধনা শুরু করেন। ওই সময়েই তিনি মাসিং নদীর পূর্বতীরে হাওরের পাড়ে ঘর বাঁধেন এবং এখানেই তিনি সাধনায় আত্মমগ্ন হন। নিভৃতচারী বাউল সঙ্গীত সাধনার পাশাপাশি নানা প্রজাতির পশুপাখি পালন করে তাদের সঙ্গে কথা বলতেন। শেষ বয়সে তিনি বিয়ে করেন।
ফকির শমছুল প্রায় ৬০০ গান রচনা করেছেন। ১৯৭২ সালে তাঁর গীতিগ্রন্থ ‘আশিকের রতœ’ প্রথম খ- প্রকাশিত হয়। এর পরে এই শিরোনামেই প্রথম ও দ্বিতীয় (দ্বিতীয় ও তৃতীয় খ- একত্রে) প্রকাশিত ১৯৮১ ও ১৯৮৪ সালে। ২০০৫ সালে ‘মাসিং নদীর তীরে’ (চতুর্থ খন্ড) প্রকাশিত হয়। পরবর্তীতে সবগুলো গান নিয়ে ‘আশিকের রতœ সমগ্র’ প্রকাশিত হয়। আশিকের রতœ সমগ্র চাহিদার কারণে দ্বিতীয় সংস্করণও প্রকাশিত হয়। ২০১৭ সালে বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমি সুনামগঞ্জ জেলা তার বেশ কিছু গান সিডিতে সংরক্ষণ করে রেখেছে। তার অনেক গান দেশ বিদেশের মূলধারার বাউলদের কণ্ঠে শোনা যায়। আজীবন তিনি সঙ্গীত সাধনার মাধ্যমে মানবতার আরাধনা করে গেছেন।

Print Friendly, PDF & Email

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর
themesbazarhaor24net
© All rights reserved © 2019 haor24.net
Theme Download From ThemesBazar.Com
error: Content is protected !!