1. haornews@gmail.com : admin :
  2. editor@haor24.net : Haor 24 : Haor 24
রবিবার, ২৫ জুলাই ২০২১, ১১:৫২ অপরাহ্ন

লন্ডন ১৯৭১: ‘ভিনদেশে বাঙালির আগুনঝরা দিনের গল্প: ১৮ আগস্ট শিল্পকলা একাডেমিতে আলোকচিত্র প্রদর্শনী

  • আপডেট টাইম :: মঙ্গলবার, ১৬ আগস্ট, ২০১৬, ১০.৩২ এএম
  • ১৯০ বার পড়া হয়েছে

বিশেষ প্রতিনিধি:
আগামী ২০ আগস্ট লন্ডনে মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতিবিজড়িত ঐতিহাসিক ছবি নিয়ে আলোকচিত্র প্রদর্শনী শুরু হবে। ঢাকার শিল্পকলা একাডেমিতে অনুষ্ঠিতব্য এই ঐতিহাসিক আলোকচিত্র প্রদর্শনী উদ্বোধন করবেন সংস্কৃতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন অর্থ মন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত। ঐতিহাসিক এই আলোকচিত্র প্রদর্শনী অনুষ্ঠানে উপস্থিত থাকবেন ১৯৭১ সালে বিলেতে স্বাধীন বাংলাদেশ আন্দোলনে ভূমিকা রাখা ব্যক্তিবর্গ ও তাদের পরিবারের সদস্যরা। বিশেষ অতিথি বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহারিয়ার আলম, এমপি। আলোচনা করবেন ১৯৭১ সনে লন্ডনে স্থাপিত বাংলাদেশ কূটনৈতিক মিশনের সচিব মহিউদ্দিন আমহদ, শহীদ সন্তান ডা. নুজহাত চৌধুরী প্রমুখ। এছাড়া স্বাগত বক্তব্য রাখবেন উদ্যোক্তা উজ্জ্বল দাশ। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করবেন প্রজেক্ট লন্ডন ১৮৭১ এর চেয়ারম্যান ফজলুল কবীর তুহিন। আয়োজকরা জানিয়েছেন এই আলোকচিত্র প্রদর্শনী নতুন প্রজন্মের চেতনা জাগ্রত করার পাশাপাশি তাদের সামনে মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস নতুন করে উন্মোচিত হবে। লন্ডনে মুক্তিযুদ্ধকালীন নানা ঘটনা উঠে আসবে এই প্রদর্শনীতে।
লন্ডনে বহুকাল আগ থেকেই ছড়িয়ে ছিটিয়ে আছেন হাজারো বাঙ্গালি। তারা দেশ ছেড়ে চলে গেলেও সঙ্গে নিয়ে গেছেন শিকড়। তাই দেশের প্রয়োজনে তারা সেখানে ভূমিকআ রেখেছেন। সেই ভূমিকার কথাই এই আলোকচিত্র অনুষ্ঠানে উঠে আসবে।
আয়োজকরা এ বিষয়ে জানিয়েছেন-
শুরু হচ্ছে দূর পরবাসে থেকেও বহু মুক্তিকামী বাঙালি এবং অবাঙালি নাগরিক বাংলাদেশের স্বাধীনতার পক্ষে কাঁপিয়েছেন বিলেতের রাজপথ। প্রবাসে মুক্তিযুদ্ধের প্রস্তুতি পর্বের বিক্ষুব্ধ, প্রতিবাদী দিনমালা থেকে লন্ডন হয়ে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বদেশ প্রত্যাবর্তন-পুরো সময়কাল নিয়ে ‘লন্ডন ১৯৭১!’ শিরোনামের আলোকচিত্র ও ঐতিহাসিক স্মারক প্রদর্শনীর আয়োজন।
বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধের বহু অজানা ইতিহাসের সরব সাক্ষী লন্ডন। স্বাধীনতা সংগ্রামের প্রস্তুতি পর্ব থেকে মুক্তিযুদ্ধকালীন দীর্ঘ নয় মাস বিলেতের প্রতিটি শহরে বিলেত প্রবাসী মুক্তিকামী বাঙালিরা জোরালো দাবি তুলেছেন স্বাধীন বাংলাদেশের সমর্থনে।
বাঙালিদের পাশাপাশি ১৯৭১ সালে স্বাধীন বাংলাদেশের সমর্থনে বিশ্ব জনমত গঠনে ব্রিটিশ এমপি, রাজনীতিক,সাংবাদিক,সমাজকর্মী,প্রগতিশীল শিক্ষার্থীরাও রেখেছেন অনন্য ভূমিকা। একাত্তরের সেইসব উত্তাল দিনগুলো থেকে উল্লেখযোগ্য কিছু তারিখ তুলে ধরছি, যেমন-
০৫ মার্চ ১৯৭১-এ লন্ডনস্থ পাকিস্তান হাই কমিশন থেকে পতাকা নামিয়ে পুড়িয়ে দেন মুক্তিকামী বাঙালিরা। ০৩ এপ্রিল ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রীর বাসবভনে স্মারকলিপি দেন মহিলা সমিতির নেতারা। ২৬ জুলাই ১৯৭১ হাউস অব কমন্সে স্বাধীন বাংলাদেশের প্রথম আটটি ডাক টিকেট ও উদ্বোধনী খাম প্রদর্শন করা হয় । ১ আগস্ট ১৯৭১ স্বাধীন বাংলাদেশের সমর্থনে অ্যাকশন বাংলাদেশের উদ্যোগে লন্ডনের ট্রাফালগার স্কোয়ারে অনুষ্ঠিত হয় কালজয়ী বিশাল জনসমাবেশ । ২৭ আগস্ট লন্ডনে বাংলাদেশ কুটনৈতিক মিশন স্থাপন।
০৮ জানুয়ারি ১৯৭২-এর ভোরে হিথ্রো বিমান বন্দরে নামেন বাংলাদেশের স্বাধীনতার স্থপতি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। সন্ধ্যায় ক্লারিজ হোটেলে তাঁর উপস্থিতিতে হয় জনাকীর্ণ সংবাদ সম্মেলন।
বিলেতে বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধের সমর্থনে জনমত গঠন ও ’বাংলাদেশ ফান্ড’ তহবিল সংগ্রহে বিশেষ ভূমিকা পালন করে স্টিয়ারিং কমিটি অব অ্যাকশন কমিটিস,সকল আঞ্চলিক অ্যাকশন কমিটি,ছাত্র সংগ্রাম পরিষদ, মহিলা সমিতি ইউকে,বাংলাদেশ মেডিকেল এসোসিয়েশন ইন ইউকে,অ্যাকশন বাংলাদেশ ও অপারেশন ওমেগা।
বিলেতে দীর্ঘ সাতবছর আমার ব্যক্তিগত গবেষণার ফসল…এই আলোকচিত্র ও স্মারক প্রদর্শনীর আয়োজন। সুদীর্ঘ এই গবেষণা করতে গিয়েই খোঁজ পেয়েছি ব্রিটিশ আলোকচিত্রী রজার গোয়েনের। যাঁর তোলা দুর্লভ সব ছবি ভিনদেশে আমাদের মুক্তিযুদ্ধের নানা অদেখা মূহুর্তের সাক্ষী। উল্লেখ করা যেতে পারে, বিলেতে বাংলাদেশি বংশোদ্ভুত ইউসুফ চৌধুরীর তোলা ছবিগুলোর কথাও। পাশাপাশি সংগ্রহ করেছি বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধ নিয়ে বাংলা ও ইংরেজি সংবাদপত্রের কাটিং,পোস্টার,প্রচারপত্র ইত্যাদি। সামনের দিনগুলোতে া,সিলেট এবং পর্যায়ক্রমে যুক্তরাজ্যের লন্ডন ও বার্মিংহ্যামে এই প্রদর্শনী আয়োজনের চেষ্ঠা চলছে।
‘প্রজেক্ট লন্ডন ১৯৭১’ প্রকল্পের মাধ্যমে ‘লন্ডন ১৯৭১ গ্রন্থ প্রকাশের পাশাপাশি বিলেতে বাংলাদেশের মুক্তি সংগ্রামের তথ্য নিয়ে ডিজিটাল আর্কাইভ www.london1971.com উন্মুক্ত হতে চলেছে।
প্রজেক্ট লন্ডন ১৯৭১ এর দীর্ঘ প্রচেষ্টায় দেশে বিদেশে অগণিত বাঙালি/ অবাঙালি বন্ধু,প্রতিষ্ঠান, সংগঠন সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন, পেয়েছি অসংখ্য মানুষের প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষ সহযোগিতা আর ভালবাসা।
কৃতজ্ঞতা জানাচ্ছি গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়,সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়,মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয়,মুক্তিযুদ্ধ যাদুঘর,ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়,বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমি,লন্ডন বাংলাদেশ হাই কমিশন,স্বাধীনতা ট্রাস্ট ইউকে,দ্য এথনিক মাইনরিটি অরজিনাল হিস্ট্রি এন্ড রিসার্চ সেন্টার ইউকে,সেক্যুলার মুভমেন্ট ইউকে,পাক্ষিক ব্রিকলেন,বাংলাদেশ ওল্ড ফটো আর্কাইভ, ম্যাজিক কিডসসহ বিভিন্ন গণমাধ্যমের অকুন্ঠ সমর্থন ও সহযোগিতাকে।
আমাদের বিশ্বাস,এই প্রকল্পের নানা আয়োজনের ও উদ্যোগের মধ্যে দিয়ে দেশ-বিদেশের তরুণ বাঙালি প্রজন্মকে ১৯৭১ সালে ভিনদেশে অবস্থানরত বাঙালিদের স্বাধীনতা সংগ্রামে তীব্র জেদী ভূমিকার কথামালা সম্পর্কে উৎসাহী হতে প্রেরণা যোগাবে, জানতে দেবে ভিনদেশে বাঙালির গৌরবগাঁথার ইতিহাস।

Print Friendly, PDF & Email

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর
themesbazarhaor24net
© All rights reserved © 2019 haor24.net
Theme Download From ThemesBazar.Com
error: Content is protected !!