1. haornews@gmail.com : admin :
  2. editor@haor24.net : Haor 24 : Haor 24
বুধবার, ২০ অক্টোবর ২০২১, ১২:১১ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম ::
দেশব্যাপী সাম্প্রদায়িক সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে ওসমানী মেডিকেলের চিকিৎসকদের বিক্ষোভ সাম্প্রদায়িক সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে সুনামগঞ্জে কবি লেখক সাংবাদিক শিল্পীদের বিক্ষোভ সমাবেশ দেশব্যাপী সাম্প্রদায়িক সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে আওয়ামী লীগের শান্তি ও সম্প্রীতি সমাবেশ মঈনুদ্দিন জালাল ছিলেন উত্তম সংগঠক : মৃত্যুবার্ষিকীতে বক্তারা রাসেলের জন্মদিনে কথা বলায় ডিসির পদ থেকে ‘প্রত্যাহার’ হয়েছিলেন পরিকল্পনামন্ত্রী মান্নান দেশব্যাপী সাম্প্রদায়িক সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে মাঠে নামছে আওয়ামী লীগ বাংলাদেশের সংখ্যালঘুদের নিরাপত্তা নিশ্চিতে জাতিসংঘের আহ্বান দিরাইয়ে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলোতে পালিত হয়নি শেখ রাসেল জাতীয় দিবস রংপুরের সাম্প্রদায়িক অপরাধীরা ‘শনাক্ত’, ৪৫ আটক: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী শিশু বলাৎকারের ঘটনায় হাফিজ মাওলানা আব্দুর রহিমের জামিন নামঞ্জুর

ঝুমন দাশকে মামলা থেকে অব্যাহতির দাবি সুনামগঞ্জের সাংস্কৃতিক আন্দোলনের নেতৃবৃন্দের

  • আপডেট টাইম :: শুক্রবার, ২৪ সেপ্টেম্বর, ২০২১, ৫.২২ পিএম
  • ২৬ বার পড়া হয়েছে

স্টাফ রিপোর্টার::
নানা অভিযোগে কারান্তরীণ হেফাজতের নেতা মামুনুল হককে নিয়ে ফেইসবুকে সমালোচনা করে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে ৬ মাসের অধিক কারাবন্ধি সুনামগঞ্জের শাল্লা উপজেলার নোয়াগাঁও গ্রামের যুবক ঝুমন দাস আপনকে এক বছরের জন্য জামিন দিয়েছেন উচ্চ আদালত। জামিন আদেশে সুনামগঞ্জের বাইরে কোথাও যেতে হলে আদালতের অনুমতি নিয়ে যাওয়ার নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। জামিনের এই শর্ত শুনে তার পরিবার মামলা থেকে রেহাই ও তার নিরাপত্তার দাবি জানিয়েছে। পরিবারের এই দাবির প্রতি সংহতি জানিয়েছেন সুনামগঞ্জের বীর মুক্তিযোদ্ধা বৃন্দ, সাংস্কৃতিক আন্দোলনের নেতৃবৃন্দসহ সুধীজন। তারা এই মামলা থেকে ঝুমন দাসের মুক্তি দাবি করেছেন।
গত ১৫ মার্চ সুনামগঞ্জের দিরাইয়ে সমাবেশ করেন হেফাজত নেতা মামুনুল হক। ওই সমাবেশে সাম্প্রদায়িক বক্তব্য দেন তিনিসহ অন্যান্য হেফাজত নেতৃবৃন্দ এমন অভিযোগ আছে। এ কারণে শাল্লার নোয়াগাঁও গ্রামের ঝুমন দাস আপন ফেইসবুকে মামুনুল হকের সমালোচনা করে পোস্ট দেন। এই ঘটনায় ক্ষুব্দ হয়ে মামুনুল হক অনুসারীরা বিক্ষোভ করলে ১৬ মার্চ রাতে ঝুমন কে আটক করে পুলিশ। পরদিন ১৭ মার্চ দিরাই ও শাল্লার ৬টি গ্রামের হেফাজত অনুসারীরা মসজিদের মাইকে ধর্ম অবমাননার গুজব ছড়িয়ে নোয়াগাঁও গ্রামে হামলা চালায়। তারা ৮৮টি বাড়িঘর ও ৫টি মন্দির ভাংচুরসহ লুটপাটও করে। এ ঘটনায় দেশ বিদেশে ব্যাপক সমালোচনা শুরু হলে আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী গ্রামের দিকে নজর দেয় এবং পুলিশ ক্যাম্প স্থাপন করে। ঘটনাস্থলে ছুটে আসেন র‌্যাবের মহাপরিচালকসহ আইন শৃঙ্খলারক্ষাকারী বাহিনীর শীর্ষ কর্মকর্তাবৃন্দ। পুলিশ হেডকোয়ার্টারের বিশেষ প্রতিনিধিদল এলাকা ঘুরে স্থানীয় পুলিশের গাফিলতি ছিল বলে প্রতিবেদন জমা দেয়। এ ঘটনায় শাল্লা থানার ওসি নাজমুল হককে চাকুরি থেকে বরখাস্ত এবং দিরাই থানার ওসিকে বদলি করে। কয়েকজন পুলিশ কর্মকর্তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতেও প্রতিবেদন দেয় উর্ধতন কর্তৃপক্ষ। তাছাড়া এ ঘটনার পর আওয়ামী লীগ, বিএনপি, কমিউনিস্ট পার্টিসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক দল নোওয়াগাঁও গ্রামে এসে গ্রামবাসীর প্রতি সংহতি জানিয়ে হামলাকারীদের বিচারের দাবি জানায়। গ্রামে হামলার ঘটনায় তিনটি পৃথক মামলা হয়। এই মামলার আসামিরা ইতোমধ্যে জামিনে বেরিয়ে এলাকায় অবস্থান করছেন।
ঝুমন দাস আপনের বিরুদ্ধে হেফাজত নেতার সমালোচনা করে ফেইসবুকে পোস্ট দেওয়ায় পুলিশ বাদী হয়ে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা দায়ের করে। তাকে রিমা-েও নেওয়া হয়। তার মুক্তির দাবিতে দেশ বিদেশে প্রতিবাদী কর্মসূচি পালিত হয়ে আসছে। সুনামগঞ্জের নি¤œ আদালতে জামিন না হওয়ায় গত ২২ আগস্ট উচ্চ আদালতে জামিন আবেদন করা হয়। ২৩ সেপ্টেম্বর উচ্চ আদালত তাকে বিভিন্ন শর্ত দিয়ে এক বছরের অস্থায়ী জামিন দিয়েছেন।
এদিকে অস্থায়ী জামিনের বদলে ঝুমনকে মামলা থেকে মুক্তি দিয়ে তার নিরাপত্তার বিষয়টি নিশ্চিত করার দাবি জানিয়েছেন ঝুমন দাশের পরিবার। সুনামগঞ্জের বীর মুক্তিযোদ্ধা, প্রগতিশীল আন্দোলনও এই দাবির প্রতি সংহতি জানিয়েছে। একই সঙ্গে তারা হেফাজত অনুসারীদের হামলার মামলার আসামীদেও কঠোর শাস্তি দাবি করেছেন।
বীর মুক্তিযোদ্ধা এডভোকেট আসাদুল্লাহ সরকার বলেন, ধর্ম বর্ণ পরিচয়ে নয় সর্ব শ্রেণির মানুষের অধিকার প্রতিষ্ঠা ও মতামত ব্যক্ত করার জন্য আমরা মুক্তিযুদ্ধের মাধ্যমে অসাম্প্রদায়িক রাষ্ট্রের জন্ম দিয়েছিলাম। বিতর্কিত ব্যক্তিকে নিয়ে মতপ্রকাশের জন্য একজন যুবকের কারাবাস আমাদের জন্য লজ্জার। আমরা তাকে মামলা থেকে রেহাই দানের দাবি জানাই। তিনি বলেন, বিতর্কিত ব্যক্তিকে নিয়ে আমাদের জাতীয় সংসদেও আমাদের জাতীয় নেতারা বক্তব্য দিয়েছেন। ঝুমন দাস তার বিরুদ্ধে মতামত ব্যক্ত করেছিলেন, কোন অপরাধ করেননি।
বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি (সিপিবি) সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট এনাম আহমেদ বলেন, ঝুমন দাশের জামিনে আমরা স্বস্থি প্রকাশ করছি। তার ন্যায় বিচার নিশ্চিত করা রাষ্ট্রের কর্তব্য। একই সঙ্গে যারা তাদের বাড়িঘরে লুটপাট ও হামলা করেছিল তাদেরও শাস্তি চাই।
ঝুমন দাসের স্ত্রী সুইটি রাণী দাস বলেন, আমরা আদালতের রায়ে সন্তুষ্ট। এই মামলা থেকে আমার স্বামীকে স্থায়ী মুক্তি দেয়া হোক। যারা আমাদের বাড়িঘরে লুটপাট, হামলা করেছিল তাদেরও শাস্তি চাই। তারা যাতে আবারও আমাদের গ্রামে হামলা না করতে পারে প্রশাসনকে সেদিকে সতর্ক থাকতে হবে।
সুনামগঞ্জ পুলিশ সুপার মো. মিজানুর রহমান বলেন, ঝুমন দাসের জামিনের বিষয় নিয়ে আমরা কথা বলতে পারবনা। তবে সে জেল থেকে বের হওয়ার পর যদি নিরাপত্তাহীনতা বোধ করে তাহলে আমরা তার নিরাপত্তার বিষয়টি দেখব। নোয়াগাও গ্রামে যাতে কোন সন্ত্রাসী গোষ্ঠী আক্রমণ না করতে পারে পুলিশ সেদিকে সকর্ত আছে।

Print Friendly, PDF & Email

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর
themesbazarhaor24net
© All rights reserved © 2019 haor24.net
Theme Download From ThemesBazar.Com
error: Content is protected !!